বিশ্ব ইজতেমা আজ শুরু

888
Share Button

সাতক্ষীরা নিউজ ডেস্ক ::
মুসলিম জাহানের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় সমাবেশ তবলিগ জামাতের ৫২তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব টঙ্গীর তুরাগ নদের তীরে আজ শুক্রবার বাদ ফজর আমবয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে। ইজতেমা ময়দানে ইতোমধ্যেই অবস্থান নিয়েছেন কয়েক লাখ মুসল্লি। জুমার দিন হওয়ায় ময়দান অভিমুখে সকাল থেকেই টঙ্গী ও আশপাশের মুসল্লিদের ঢল নামবে বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন। আগামী ১৫ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে ইজমেতার প্রথম পর্ব শেষ হবে। চারদিন বিরতি দিয়ে আগামী ২০ জানুয়ারি শুক্রবার থেকে শুরু হবে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব। ২২ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে ২০১৭ সালের টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমা সমাপ্ত হবে।

এবারের ইজতেমাকে ঘিরে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

১৯৬৭ সাল থেকে নিয়মিত ইজতেমা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। চাপ কমাতে ২০১১ সাল থেকে দুই পর্বে ইজতেমা আয়োজন করা হচ্ছে।

গত বছর থেকে দেশের ৬৪ জেলাকে দুই ভাগে ভাগ করে দুই পর্বে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সেই নিয়মে এবার ৩২টি জেলার মুসল্লিরা প্রথম (১৬ জেলা) ও দ্বিতীয় পর্বের (১৬ জেলা) ইজমেতায় যোগ দিচ্ছেন। গত বছর যে ৩২ জেলার মুসল্লি বিশ্ব ইজতেমায় যোগ নিয়েছিলেন, তারা এবার আসছেন না। তবে জেলাভিত্তিক ইজতেমায় যোগ দিয়েছেন তারা। আগামী বছর টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমায় শরিক হবেন ওই ৩২ জেলার মুসল্লিরা।

রাজধানীর উপকণ্ঠ টঙ্গীর তুরাগতীরে নির্মিত বিশাল শামিয়ানার নিচে জামাতবদ্ধ হয়ে দলে দলে মুসল্লিরা অবস্থান করছেন। গতকাল রাত পর্যন্ত বিদেশি মেহমানসহ লাখো মুসল্লি জমায়েত হয়েছেন।

তবলিগের রেওয়াজ অনুযায়ী আজ শুক্রবার ফজরের নামাজের পর থেকেই ইজতেমা ময়দানে সুশৃঙ্খলভাবে অবস্থান, ইবাদত-বন্দেগির নিয়ম-কানুন ও করণীয় নিয়ে বয়ান শুরু হবে। আখেরি মোনাজাতের আগ পর্যন্ত ইজতেমায় ইমান, আমল ও আখলাকসহ তবলিগের ছয় উসুল বা মূলনীতির ওপর বয়ান করবেন শীর্ষ মুরব্বিরা।

স্বাধীনতার পর জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টঙ্গীর বিভিন্ন মৌজায় বিশ্ব ইজতেমার জন্য ১৬৫ একর ভূমি বরাদ্দ দেন। বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইজতেমাস্থলের ব্যাপক উন্নয়ন সাধন করে। তার বিশেষ নির্দেশে ইজতেমাস্থলের রাস্তাঘাট, অসমতল ভূমি সমতলকরণ, ৮ হাজার পাকা পায়খানা, পাকা গোসলখানা, অজুখানা, বিদেশি মুসল্লিদের জন্য পয়ঃপ্রণালি, রান্নাবান্না, থাকার জন্য স্থায়ী পাকা টিনশেড ঘর নির্মাণ, ইজতেমা সড়ক নির্মাণ, ড্রেন-কালভার্ট নির্মাণ ও অন্যান্য উন্নয়নের কাজ হয়েছে।

যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ মো. জাহিদ আহসান রাসেল এ ব্যাপারে সার্বণিক দায়িত্ব পালন করছেন।

ইজতেমা উপলে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে ধর্মমন্ত্রী অধ্য মতিউর রহমান এমপি টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমা মাঠ পরিদর্শন করেন। তিনি হামদর্দের ফ্রি মেডিক্যাল ক্যাম্প উদ্বোধন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সাংসদ আলহাজ মো. জাহিদ আহসান রাসেল, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র আসাদুর রহমান খান কিরণ প্রমুখ।

গাজীপুর সিটি করপোরেশন বিশ্ব ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের সেবায় ৫টি কন্ট্রোল রুম নির্মাণ (সিটি করপোরেশন, জেলা প্রশাসন, র‌্যাব, পুলিশ, আনসার ও ভিডিপি) করেছে। নির্মাণ করা হয়েছে ১০টি তোরণ। ইজতেমার নিরাপত্তায় র‌্যাবের ৯টি ও পুলিশের ৫টিসহ মোট ১৪টি ওয়াচ টাওয়ার নির্মাণ করা হয়েছে।

এ ছাড়া বিনামূল্যে চিকিৎসার জন্য কন্ট্রোল রুমের সামনে ৫৬টি চিকিৎসা সেবা কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। ১২টি উৎপাদক নলকূপ দ্বারা ১২ কিলোমিটার পাইপলাইনের মাধ্যমে প্রতিদিন ঘণ্টায় ৩ কোটি ৫৫ লাখ গ্যালন সুপেয় পানি সরবরাহ নিশ্চিত করা হয়েছে।

বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে অংশগ্রহণকারী মুসল্লিরা জেলাওয়ারি খিত্তায় অবস্থান নিচ্ছেন। এর মধ্যে ঢাকা জেলার মুসল্লিরা ১ থেকে ৫নং খিত্তা, টাঙ্গাইল জেলার মুসল্লিরা ৬ থেকে ৮নং খিত্তা, ময়মনসিংহ জেলার মুসল্লিরা ৯ থেকে ১১নং খিত্তা, মৌলভীবাজার জেলার মুসল্লিরা ১২নং খিত্তা, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মুসল্লিরা ১৩নং খিত্তা, মানিকগঞ্জের মুসল্লিরা ১৪নং খিত্তা, জয়পুরহাটের মুসল্লিরা ১৫নং খিত্তা, চাঁপাইনবাবগঞ্জের মুসল্লিরা ১৬নং খিত্তা, রংপুরের মুসল্লিরা ১৭নং খিত্তা, গাজীপুরের মুসল্লিরা ১৮ ও ১৯নং খিত্তা, রাঙামাটির মুসল্লিরা ২০নং খিত্তা, খাগড়াছড়ির মুসল্লিরা ২১নং খিত্তা, বান্দরবানের মুসল্লিরা ২২নং খিত্তা, গোপালগঞ্জের মুসল্লিরা ২৩নং খিত্তা, শরীয়তপুরের মুসল্লিরা ২৪নং খিত্তা, সাতীরার মুসল্লিরা ২৫নং খিত্তা এবং যশোর জেলার মুসল্লিরা ২৬নং খিত্তায় অবস্থান নেবেন।

গতকাল থেকে ইজতেমার চারপাশে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। এবারই প্রথম বিশ্ব ইজতেমার চারপাশ সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হয়েছে। গতকাল দুপুরে ইজতেমাস্থলের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে টঙ্গীর টেলিফোন শিল্প সংস্থা (টেশিস) মাঠে পুলিশের এক ব্রিফিংয়ে গাজীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশিদ এ কথা জানান।

তিনি জানান, ইজতেমা মাঠের সার্বিক নিরাপত্তার জন্য র‌্যাব-পুলিশসহ এবার বিশ্ব ইজতেমার দুই পর্বে ১২ হাজারের মতো নিরাপত্তাকর্মী দায়িত্ব পালন করবেন। থাকবে ৫ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ইজতেমা মাঠের ভেতরে সাদা পোশাকে পর্যাপ্ত পুলিশও দায়িত্ব পালন করবেন।

ইজতেমা ময়দানে ১ মুসল্লির মৃত্যু

বিশ্ব ইজতেমায় যোগ দিতে আসা এক মুসল্লি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে তিনি মারা যান। তার নাম মো. ফজলুল হক (৫৬)। তিনি ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার মারুয়া গ্রামের মৃত আহম্মদ আলীর ছেলে। তিনি বুধবার বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে আসেন।






সঙ্গতিপূর্ণ আরো খবর

  • ঢাকায় প্রণব: রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন
  • মনোনয়ন ফরম কিনলেন তাবিথ আউয়ালসহ ৫ জন
  • কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে : অর্থমন্ত্রী
  • আখেরি মোনাজাত শেষ, মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনা
  • ঢাকা ছাড়লেন মাওলানা সা’দ
  • সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে: প্রধানমন্ত্রী
  • সরকারের ১০ উদ্যোগে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে: প্রধানমন্ত্রী