‘লন্ডনে গিয়ে ষড়যন্ত্র করে কোনো লাভ হবে না, মানুষ শেখ হাসিনাকেই নির্বাচিত করবে’: হাছান মাহমুদ

178514_1
Share Button

সাতক্ষীরা নিউজ ডেস্ক :: আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বিএনপি কানাগলিতে হারিয়ে যাওয়ায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)’র ম্যাপ দেখতে পেলেও রোড দেখতে পায় নি।

তিনি বলেন, ‘তারা গত নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে কানাগলিতে হারিয়ে গেছে। তাই তারা ইসির ম্যাপ দেখতে পেলেও রোড দেখতে পায়নি।’

ড. হাছান আরো বলেন, বিএনপি আগামী জাতীয় নির্বাচনে অংশ গ্রহণ না করলে চিরতরে হারিয়ে যাবে। আর তাদের নেতা-কর্মীরাও কানাগলিতে ঘুরপাক খেয়ে-খেয়ে হতাশার অতল গহব্বরে তলিয়ে যাবে।

ড. হাছান মাহমুদ সোমবার রাজধানীর ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটি মিলনায়তনে স্বাধীনতা পরিষদ নামে একটি সংগঠনের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারাবন্ধি দিবস উপলক্ষে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। খবর বাসসের।

সংগঠনের উপদেষ্টা এবং সবুজবাগ থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চিত্তরঞ্জন দাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট শামসুল হক টুকু এমপি, কুমিল্লা (উত্তর) জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ আউয়াল সরকার, আওয়ামী লীগ নেতা শাহজাহান আলম সাজু ও হাসিবুর রহমান মানিক ।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত রোডম্যাপ অত্যন্ত বাস্তব সম্মত ও সময়োপযোগী। কেননা নির্বাচন কমিশন এ রোডম্যাপ আরো দেরীতে ঘোষণা করলে তা বাস্তবায়ন করা সম্ভব হতো না।

আগামী নির্বাচন বর্জন না করে নির্বাচন কমিশনকে সার্বিকভাবে সহায়তা করার জন্যও বিএনপির প্রতি আহবানও জানান তিনি।

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার লন্ডন সফরে তারেক রহমানের সাথে আবেগঘন পরিবেশের কথা উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, বেগম খালেদা জিয়া লন্ডনে তার পুত্র বিএনপি নেতা তারেক রহমানের সঙ্গে সাক্ষাতের সময় কান্নায় ভেঙ্গে পড়েছেন। কিন্তু বিএনপির আন্দোলনের নামে পেট্রলবোমা মেরে দেশের নিরীহ মানুষকে যখন পুড়িয়ে মারা হয়েছিল তখন তাকে কাঁদতে দেখা যায়নি।

তিনি বলেন, ‘ তিনি (খালেদা জিয়া) শুধু তার বাড়ি আর পুত্রের জন্য কান্না করেন। দেশের মানুষের জন্য তিনি কখনো কান্না করেন না। সেজন্য তিনি দেশের জনগণের নেত্রী হওয়ার যোগ্যতা হারিয়েছেন।’

বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. হাছান বলেন, লন্ডনে গিয়ে নির্বাচন নিয়ে ষড়যন্ত্র করে কোনো লাভ হবে না। কারণ আগামীতেও দেশের মানুষ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেই নির্বাচিত করবে।






সঙ্গতিপূর্ণ আরো খবর

  • বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতির শ্রদ্ধা
  • শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ
  • যে কারণে এক সপ্তাহ বন্ধ থাকবে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ত্রাণ বিতরণ
  • জরুরি সেবার ‘৯৯৯’ উদ্বোধন করলেন জয়
  • অতিরিক্ত সচিব পদে পদোন্নতি ১২৮ কর্মকর্তার
  • আজ প্যারিস যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী
  • যশোরে ‘শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক’ উদ্বোধন
  • নির্বাচন অবাধ করার সম্পূর্ণ দায়িত্ব প্রশাসনের : সিইসি