শ্যামনগরের আলোচিত হাসান বাহিনীর তান্ডব অব্যাহত রাখতে ওসির বিরুদ্ধে ভিত্তীহিন মামলা

satkhira-news-logo-original-900
Share Button

শ্যামনগর অফিস :: ছাত্র শিবির থেকে যোগদানকৃত হাসান এখন শ্যামনগর আটুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি। দলের প্রভাব ঘাটিয়ে হাসান এবার রামরাজত্ব গড়ে তোলে উপজেলার আটুলিয়া,পদ্ধপুকুর,গাবুরা ও বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়ন জুড়ে। হাসানের চাদাবাজিতে অতিষ্ট হয়ে উঠে ওই চার ইউনিয়নের সাধারন মানুষ। হাসান চাদাবাজী, ঘের দখল,লুটপাট,মাদক ব্যবসা সহ চালিয়ে যাচ্ছিল নানা অপকর্ম। তবে তার এই রামরাজত্বে বাধ সাধে শ্যামনগর থানার অফিসার ইনচার্জ ( ওসি) সৈয়দ মান্নান আলী। হাসানের বে- পরোয়া অপধাধ মুল কর্মকান্ড রুখতে তিনি ভুক্তভোগি সংখ্যালঘু ও সাধারন মানুষের পাশে দাড়ান। হাসান বাহিনীর তান্ডবে আতংকিত সাধারন মানুষ ওসির আন্তরিকতায় সাড়া দিয়ে এগিয়ে আসে, হাসান বাহিনীকে প্রতিরোধ করতে।এতে প্রচন্ড ভাবে ক্ষিপ্ত হয়ে পড়ে বাহিনী প্রধান হাসান সহ তার মদদ দাতা গড ফাদাররা। একারনে এবার শুরু করেছে শ্যামনগর থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ মান্নান আলী ও তার চৌকস অফিসার এস আই লিয়াকত এর বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্র। তারই জের ধরে গত বৃহস্পতিবার সাতক্ষীরা আদালতে হাসান বাহিনীর অন্যতম সদস্য সবুজ মিথ্যা ও ভিত্তীহিন এক মামলা দায়ের করেছে বলে ওসি মান্নান আলী দাবী করেন। এধরনের ভিত্তীহিন মামলা হওয়ায় শ্যামনগর মুক্তিযোদ্ধা সাংসদ,ইউপি চেয়ারম্যান সমিতি, প্রেসক্লাব ও সচেতন মহল এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন। শ্যামনগর থানার ওসি সৈয়দ মান্নান আলী বলেন, ইতিমধ্যে সংখ্যালঘুর চিংড়ী ঘের দখল, ও চাদাবাজী ঘটনায় হাসানের বিরুদ্ধে ২ টি মামলা হয়েছে, যার নং ৩৮ তাং ২২/৫/১৭ ও মামলা নং- ৪৬ তাং ২৬/৫/১৭। তিনি বলেন, এ চাদাবাজী মামলার অন্যতম আসামী হলো আটুলিয়া ইউনিয়নের ছোট কুপট গ্রামের শাহাদত হোসেন এর ছেলে সবুজ। মামলার পর সবুজকে আটক করা হয়। তবে আটকের পর সে জামিনের রি- কল দেখালে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়। পরে হাসান বাহিনী ও তার গডফাদারদের মদদে চিহৃিত সবুজ ভিত্তীহিন মামলা করে।
আটুলিয়ার ছোট কুপট গ্রামের ইয়াছিনের বাড়ীতে চাদা না পেয়ে ককটেল হামলা চালানো হয়। এঘটনায় ইয়াছিন বাদী হয়ে থানায় ১৩ নং মামলা দায়ের করে।এ মামলায় হাসান বাহিনীর অন্যতম সদস্য সাইদকে আটক করা হয়।চাদাবাজীর মামলায় হাসানের বড় ভাই জামাতনেতা ও আটুলিয়া ইউপির সদস্য সৈয়দ কামালকে ও আটক করা হয়। বর্তমানে তারা জেল হাজতে রয়েছে। তিনি বলেন,হাসান বাহিনীর বিরুদ্ধে বর্তমানে সাধারন মানুষ ফুসে উঠেছে। হাসান বাহিনীর সকল অপকর্ম রুখতে প্রতিদিন সাধারন মানুষ আইনের আশ্রয় নিচ্ছে। এদিকে গাবুরা ইউপি চেয়ারম্যান আলি আজম টিটোর বিরুদ্ধে ও শ্যামনগর থানায় ২ টি মামলা হয়েছে। গাবুরার সাদিয়া খাতুন ও ২৮/৫/১৭ তারিখে ৫২ নং মামলা ও গোপালগন্জের মহেশপুর কাশিয়ানীর তৈবুর রহমান উজ্জল ঘের দখলের অভিযোগে ০১/৬/১৭ তারিখে ০১ নং মামলা করেন। তিনি বলেন, এসকল চিহৃিত অপরাধীদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা নেয়ায় আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে মিথ্যা ও ভিত্তীহিন বিষয় নিয়ে আদালতে মামলা করা হয়েছে।বিভিন্ন অপপ্রচার ও হয়রানী করার চেষ্টায় আমাকে অপসারন করার চেষ্টা করা হচ্ছে। তিনি বলেন,হাসান বাহিনীর শিকড় যত গভীরে থাকুক না কেন, তা উপড়ে ফেলা হবে। হাসান বাহিনীর বিরুদ্ধে আইনগত ‘ব্যবস্থা গ্রহন করায় বর্তমানে উপজেলার চার ইউনিয়নের সাধারন মানুষ স্বস্তিতে বসবাস করছে। শ্যামনগর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সাংসদ কমান্ডার বাবু দেবীরন্জন মন্ডল বলেন,সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিলে,যদি ওসির বিরুদ্ধে মামলা হয়, তবে সেটি নিছক মিথ্যা ছাড়া অন্য কিছুই নয়।এঘটনায় আমরা মুক্তিযোদ্ধা সাংসদ এর পক্ষ থেকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এদিকে শ্যামনগর উপজেলা ইউপি চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি এড,জহুরুল হায়দার বাবু বলেন,বর্তমানে শ্যামনগরে আইন শৃংখলা অনেক ভাল, মাদক ও জুয়ার তৎপরতা একেবারই কমে গেছে,একটি মহল ব্যক্তিগত সুবিধা না পেয়ে শ্যামনগর থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ মান্নান আলীর বিরুদ্ধে অপপ্রচার সহ হয়রানী করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।সম্প্রতি তার বিরুদ্ধে ওই বাহিনীর এক সদস্য সাতক্ষীরা আদালতে একটি পিটিশন মামলা করেছেন।তবে মামলাটির এখন কোন কর্য্যক্রম শুরু হয়নি। সন্ত্রাসী বাহিনীদের দায়ের করা ভিত্তীহিন মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। শ্যামনগর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি জি এম আকবর কবীর বলেন,বর্তমানে শ্যামনগরে চুরি, ডাকাতি ও পাচারের ঘটনা একেবারই নেই বললে চলে, তিনি বলেন,ফেসবুক ব্যবহার নিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিভিন্ন সময়ে শ্যামনগর থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ মান্নান আলী মতবিনিময় করেন। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্টান সহ গুরুপ্তপুর্ন স্থানে টহল জোরদার করেছিলেন ওসি মান্নান আলী। এসকল কারনে শ্যামনগর থানার অফিসার সৈয়দ মান্নান আলী খুব সহজে শ্যামনগর বাসীর আস্তা কুড়িয়ে ছিলেন।
তিনি বলেন,শ্যামনগর থানার ওসির বিরুদ্ধে দ্বায়েরকৃত ভিত্তীহিন মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।






সঙ্গতিপূর্ণ আরো খবর

  • নুরনগর আশালতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রাত্তন শিক্ষক আফছার হোসেন আর নেই
  • আওয়ামীলীগের সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপির সাতক্ষীরা আগমন উপলক্ষ্যে শ্যামনগরে আনন্দ মিছিল
  • ভাসমান পাগলদের নিয়মিত খাদ্য প্রদান কর্মসূচী শুরু করলেন এমপি জগলুল
  • শ্যামনগরে মুক্তিযোদ্ধা আওয়ামী প্রজন্মলীগের আহবায়ক কমিটি গঠন
  • শ্যামনগরে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবস পালিত
  • শ্যামনগরে আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস পালিত
  • প্রধানমন্ত্রীর সফলতা প্রচারে উঠান বৈঠকে এমপি জগলুল হায়দার
  • শ্যামনগর মহসিন সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত