রিক্সা-ভ্যান চলবে তবে পৌরসভার মধ্যে কোন ব্যাটারি চালিত ভ্যান চলবে না

সাতক্ষীরায় ‘ব্যাটারি চালিত ভ্যান’ বন্ধের অভিযান প্রসঙ্গে জেলা প্রশাসক এ.কে.এম মহিউদ্দিন

dsc00435
Share Button

আব্দুর রহমান :: হঠাৎ করেই সাতক্ষীরা শহর থেকে উধাও হয়ে গেছে ব্যাটারিচালিত অবৈধ ভ্যান।

নানা অজুহাত এবং সমন্বয়হীনতার কারণে দীর্ঘদিন ধরে শহর দাপিয়ে বেড়ালেও গত কয়েকদিন ধরে প্রশাসনের কঠোর অভিযানে আড়ালে চলে গেছে এসব অবৈধ ভ্যানগুলো।

অতীতেও এসব অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করতে দেখা গেলেও সমন্বয়হীনতার ফলে অবৈধ যানবাহন বিরোধী পদক্ষেপগুলো থমকে যায় এবং ধারাবাহিকতা হারায়। বিকল্প কোন ব্যবস্থা না করায় শেষ পর্যন্ত অভিযান বন্ধ হয়ে যায়।

তবে এবার বিকল্প যানবাহন হিসেবে প্রধান সড়কে চলছে লেগুনা সার্ভিস, রিক্সা-ভ্যান, ইজিবাইক ও অন্যান্য যানবাহন। অভিযান অব্যাহত থাকায় ইতিমধ্যে অনেক ব্যাটারি চালিত ভ্যান চালকরা ব্যাটারি ও মটর খুলে চালানো শুরু করেছে। সামরিকভাবে জনসাধারণের চলাচলে একটু বিঘ্ন ঘটলেও তা দ্রুত সমাধান হবে বলে আশাবাসী প্রশাসন।

এদিকে যানজট রোধে শুধুমাত্র ব্যাটারি চালিত ভ্যানের ওপর অভিযান চালালে তা কাক্ষিত ফল দেবে বলে অধিকাংশজন মনে করেন না। শহরের এক পা ভ্যান চালক জানান, আমরা অবশ্যই এ অভিযানকে স্বাগত জানাতে চাই। দুর্ঘটনা রোধে এ অভিযানটি কম-বেশি ফলপ্রসু হবে। সর্বোপরি প্রশাসনকে তদবির না শোনা এবং প্রভাবশালী ও ওপর মহলের চাপ সহ্য করার দৃঢ় মানসিকতা থাকতে হবে।

সূত্রে জানা যায়, ব্যাটারিচালিত অবৈধ ভ্যান চলাচল নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে সচেতন মহলে তবে ঝুঁকিপূর্ণ এ অবৈধ যানটি বিদ্যুতের অপচয়ের একটি বড় মাধ্যম। অবৈধ এ যানবাহনটি বন্ধ করার জন্য জেলা প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এবং সুশীল সমাজের মধ্যে সমন্বয় দরকার বলে মনে করেন শহরবাসী।

অবৈধ এ ব্যাটারি চালিত ভ্যান বন্ধ করায় একটি মহল এর বিপক্ষে অবস্থান করলেও সাধারণ নাগরিকদের মাঝে ফিরে এসেছে সস্তির নিঃশ্বাস। ব্যাটারি চালিত এসব অবৈধ যানবাহন ছোট-বড় দুর্ঘটনার কারণ হিসেবে চিহ্নিত। অবৈধ যানবাহনের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করায় জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনকে অভিনন্দন জানিয়েছে সচেতন শহরবাসী ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ। তবে বিকল্প ব্যবস্থা ও মূল্য তালিকা নির্ধারণ করার জোর দাবী জানান তারা।

সাতক্ষীরা জেলা মাহিন্দ্রা থ্রি হইলার চালকলীগের সভাপতি মাসুম বিল্লাহ বলেন, ব্যাটারি চালিত ভ্যান বন্ধ হওয়ার পর থেকে শহরের যানযট কিছুটা নিরসন হয়েছে। তবে সামরিকভাবে যাত্রীদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। এটা কিছুদিন পর স্বাভাবিক পর্যায়ে আসবে বলে মনে করেন তিনি।

এব্যাপারে বিআরটিএ সাতক্ষীরা সার্কেলের সহকারী পরিচালক প্রকৌশলী তানভীর আহমেদ চৌধুরী বলেন, ‘ইঞ্জিন থাকলেও নিরাপত্তা এবং অন্যান্য দৃষ্টিকোণ থেকে ব্যাটারিচালিত ভ্যান যান্ত্রিক যানবাহন নয়। সাতক্ষীরায় ব্যাটারি চালিত এসব অবৈধ যানবাহন বন্ধে বিগত ২ বছর ধরে তাগিদ দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু অজুহাত দেখিয়ে তারা সময় নেয়। প্রতি মাসে আইন শৃংখলা বিষয়ক মিটিং ব্যাটারি চালিত ভ্যান বন্ধের ব্যাপারে কথা বলেন বক্তারা। সাধারণ মানুষের দুর্ভোগ লাঘবে পর্যাপ্ত ৪ হুইলার না থাকলে আমরা ৩ হুইলার চালু করবো। দুর্ঘটনাও ঘটার আশঙ্কা থাকে। সে জন্য এর বৈধতা দেওয়া হয়নি।’
সাতক্ষীরা সরকারি মহিলা কলেজের প্রাক্তণ অধ্যক্ষ প্রফেসর আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, ব্যাটারিচালিত ভ্যান যারা চালাচ্ছে এরা অধিকাংশ মধ্যবিত্তের শ্রেণির মানুষ।

তবে কিছু গরিব মানুষও আছে যারা বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে এটা তৈরি করেছে। এছাড়া কিছু মানুষ আছে যারা ১০/১৫ ব্যাটারি চালিত ভ্যান তৈরি করে ভাড়ায় চালাচ্ছে। ব্যাটারি চালিত এসব ভ্যানের চার্জ দেওয়ায় প্রচুর বিদ্যুৎ চলে যাচ্ছে। ফলে বিদ্যুৎ বিভ্রাট চরম আকার ধারণ করেছে। দিন দিন এটা যেভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে দেখা যাচ্ছে রাস্তায় ব্যাটারি চালিত ভ্যানে-ভ্যানে এক্সিডেন্ট হচ্ছে।

এখন এটা বন্ধ করতে হলে ব্যাটারি চালিত ভ্যানগুলো দিয়ে মালামাল বহন করা যেতে পারে এবং ইউনিয়ন পর্যায়ের কোন ভ্যান চালক পৌর এলাকায় ভ্যান চালাতে পারবে না। তাহলে কিছুটা সমাধান হবে বলে আমি মনে করি।






সঙ্গতিপূর্ণ আরো খবর

  • সাতক্ষীরা জেলা জামায়াতের প্রচার সম্পাদক আটক
  • শ্যামনগরে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস-২০১৭ পালিত
  • বুধহাটা-দরগাহপুর সড়কের করুন অবস্থা ॥ প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটছে
  • পুলিশ সুপারের সাথে আশাশুনি আ’লীগ নেতৃবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাৎ
  • কলারোয়ায় বিদ্যুৎ ও ফিডার শ্রমিক ইউনিয়ন গঠন
  • কলারোয়ায় মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভা
  • কলারোয়ায় শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিসৌধে আলোক প্রজ্জ্বলন
  • নুরনগরে দুস্থ্য ও অসহায়দের মাঝে কম্বল বিতরণ