মধ্যরাতে এক যুবতীর কাছে ৫ যুবকের পরাজয়

Share Button

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
রাতের অন্ধকারে শহরের বুকে নামে নিরাপত্তাহীনতার চাদর। বিশেষ করে এ আতঙ্ক গ্রাস করে মেয়েদের মধ্যে। এমন ঘটনায় পড়েছিলেন ভারতের কেষ্টপুরের এক তরুণী। কিন্তু পাঁচ যুবকের কাছে হার মানেননি ওই তরুণী।

মঙ্গলবার কেষ্টপুরের রাস্তায় এক তরুণীকে ধাওয়া করে জোর করে গাড়িতে তোলার চেষ্টা করা হয়। যদিও এ ঘটনায় অভিযুক্ত পাঁচ যুবককে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয় বাগুইআটি থানার পুলিশ।

জানা গেছে, কেষ্টপুরের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন আসামের ওই তরুণী। কাজ করতেন তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থায়। প্রতিদিনের মত তিনি মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বৈশাখী থেকে ২০৬ ফুটব্রিজ হয়ে বাড়ির দিকে যাচ্ছিলেন।

সমরপল্লি এলাকা দিয়ে যাওয়ার সময় ওই তরুণী লক্ষ্য করেন, তাকে লক্ষ্য করে একটি সাদা রঙের গাড়ি তার মুখে হেডলাইটের আলো ফেলছে। গাড়ির ভেতর রয়েছে পাঁচ যুবক। প্রথমে ব্যাপারটায় অতটা আমলে নেননি তরুণী। কিন্তু একটু পরই তরুণী বুঝতে পারেন যে, তাকে রীতিমতো অনুসরণ করছে গাড়িটি।

ভয় পেয়ে তিনি একটি গলিতে ঢুকে পড়েন। গলি থেকে বড় রাস্তায় যেতেই দেখেন সামনে দাঁড়িয়ে আছে গাড়িটি। প্রাণভয়ে তরুণীটি দৌড়াতে শুরু করেন। এমনকী একটা জায়গায় এসে ওই তরুণীকে প্রায় ঘিরেই ধরেছিল পাঁচ যুবক।

কোনোক্রমে অন্য এক তরুণীর সাহায্য নিয়ে তিনি ওই পাঁচ যুবকের হাত থেকে বাঁচেন।

ঘটনার কথা বিধাননগর পুলিশ জানতে পারে ওই তরুণীর এক বন্ধুর মাধ্যমে। তিনি গোটা ঘটনাটি ফেসবুকে পোস্ট করেন।

বুধবারই বাগুইআটি থানার পুলিশ পাঁচ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে। ধৃতদের নাম বিশ্বজিৎ মজুমদার, কিশোর বিশ্বাস, অভিষেক দাস, অভিষেক বাচার এবং সজল দাস।

বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে বিশ্বজিতের গাড়িটি। বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেটের গোয়েন্দা প্রধান শবরী রাজকুমার জানান, ধৃতদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।






সঙ্গতিপূর্ণ আরো খবর

  • ৬৬ আরোহী নিয়ে ইরানি বিমান বিধ্বস্ত
  • অং সান সু চির ১৫ বছরের কারাদণ্ড!
  • দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমার পদত্যাগ
  • এরদোগান পরিবারের বিরুদ্ধে অর্থ পাচারের সত্যতা পাওয়া যায়নি
  • ইন্দোনেশিয়ায় পর্যটকবাহী বাস খাদে পড়ে নিহত ২৭
  • পাকিস্তানেও নিষিদ্ধ হচ্ছে ‘একসঙ্গে তিন তালাক’
  • দ. কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের বাসভবনে উ. কোরিয়ার প্রতিনিধিদল