রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ কিছুতেই ঠেকানো যাচ্ছে না। নতুন করে আসলো ৩ শতাধিক রোহিঙ্গা,১ শিশুর মৃত্যু

Share Button

কক্সবাজার প্রতিনিধি: মিয়ানমার থেকে রোহিঙ্গা আসা কিছুতেই বন্ধ হচ্ছে না। বঙ্গোপসাগর পাড়ি দিয়ে রাতের আঁধারে নৌকায় করে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে পালিয়ে আসছে। মঙ্গলবার ভোররাতে বাহারছড়ার ইউনিয়নের নোয়াখালীয়া পাড়া সমুদ্রসৈকত দিয়ে নৌকায় করে দুই শতাধিক রোহিঙ্গা আসে। এসসয় দ্বীন ইসমাল (৮) নামে এক রোহিঙ্গার শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সে মিয়ানমারের বুশিডং (বুথেড) গ্রামের মোহাম্মদ রফিকের ছেলে বলে জানা গেছে।
ওইদিন টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের হারিয়াখালী ত্রাণকেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে ৯৩ রোহিঙ্গা শিশু, নারী ও পুরুষ।উল্লেখ্য, গত বছর ২৩ নভেম্বর মিয়ানমারের সঙ্গে বাংলাদেশের সমঝোতার স্মারক সই হয়েছে। এরপর থেকে ৯ হাজার ৩৫৬জন রোহিঙ্গার ঠাঁই হয়েছে উখিয়া ও টেকনাফের রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে।
বাহারছড়ার ৯নং ওয়ার্ডের ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মো. ইলিয়াস বলেন, মঙ্গলবার ভোররাতে বাহারছড়ার নোয়াখালীয়া পাড়া সমুদ্রসৈকত দিয়ে নৌকায় করে ২০০জনের বেশি রোহিঙ্গা আসে। এরমধ্যে শীতের কারণে ৮-৯ বছর বয়সী এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। তাকে শীলখালীতে দাফনের ব্যবস্থা করা হয়। পরে রোহিঙ্গারা ভাগ হয়ে কিছু উখিয়া ও টেকনাফের দিকে চলে যায়।
জানতে চাইলে টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের হারিয়াখালী ত্রাণকেন্দ্রে দায়িত্ব পালন করা জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি ও উপজেলা জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, নাফনদীর সীমান্তে বিজিবির কড়া সতর্ক অবস্থায় থাকায় রোহিঙ্গারা এখন বঙ্গোপসাগর পাড়ি দিয়ে রাতের আঁধারে নৌকায় করে টেকনাফে আসছে। এসব রোহিঙ্গাকে বিভিন্ন এলাকায় বিজিবির সদস্যরা পেয়ে প্রথমে কিছুক্ষণ একটি জায়গায় আটকে রাখেন। পরে তাদের সঙ্গে কোনো ধরনের মাদক, অস্ত্র ও অবৈধ মালামাল আছে কি না তল্লাশি করে সেনাবাহিনীর হারিয়াখালী ত্রাণকেন্দ্রে পাঠানো হয়। তিনি বলেন, চাল, ডাল, সুজি, চিনি, তেল, লবণের একটি করে বস্তা দিয়ে গাড়িতে করে ২২ পরিবারের ৯৩জন রোহিঙ্গাকে টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শিবিরে পাঠানো হয়েছে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. জাহিদ হোসেন ছিদ্দিক বলেন, কিছুতেই রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ কমছে না। একদিকে প্রত্যাবাসন নিয়ে চলছে জল্পনা-কল্পনা, অন্যদিকে কোনো না কোনো সীমান্ত দিয়ে রোহিঙ্গারা ঢুকছে বাংলাদেশে। কিন্তু হঠাৎ করে গতকাল থেকে সাগর দিয়ে রোহিঙ্গা আসায় উদ্বেগ কিছুটা বেড়েছে। নতুন করে আসা রোহিঙ্গাদের মধ্যে একজন শিশু মারা গেছে বলে স্থানীয় এক ইউপির সদস্যের মাধ্যমে শুনেছি। এরমধ্যে মঙ্গলবার ৯৩ জন রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে সাবরাং ইউনিয়নের হারিয়াখালী ত্রাণকেন্দ্রে এসেছে। তাদের টেকনাফের নয়াপাড়া রোহিঙ্গা শিবিরে পাঠানো হয়েছে।
তিনি বলেন, গত বছরের ২৫ আগস্টের পর থেকে মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে রোহিঙ্গা পাচার, আশ্রয়, নৌকায় পারাপার ও রোহিঙ্গা দালালসহ প্রায় সাড়ে সাত শতাধিক দালালকে চিহ্নিত করে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও জরিমানা করা হয়েছে।






সঙ্গতিপূর্ণ আরো খবর

  • উখিয়ায় ছাত্রলীগ নেতার আত্নহত্যা…
  • রোহিঙ্গা ‘গণহত্যার খবরের কারণে’ রয়টার্সের সাংবাদিক আটক
  • রোহিঙ্গা মানবিক সংকটে সাড়া দিয়ে জাতিসংঘকে প্রস্তাব গ্রহণের আহ্বান ঢাকার
  • নাফ নদীতে রোহিঙ্গা বোঝাই নৌকা ডুবিতে ৩ শিশু নিহত
  • রোহিঙ্গা যুবতিদের নিয়ে ব্যবসা, নারী দালালের ১ মাসের সাজা
  • মধ্যরাতে বালুখালী রোহিঙ্গা শিবিরে আবারো গোলযোগ, গুলি
  • খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ সংগঠককে গুলি করে হত্যা