জাফর ইকবালের উপর হামলার পৃষ্ঠপোষক বিএনপি : ওবায়দুল কাদের

Share Button

অনলাইন ডেস্ক :: শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলাকারীরা সাম্প্রদায়িক কিলিং গ্রুপের সদস্য এবং বিএনপি তাদের পৃষ্ঠপোষকতা দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সোমবার বিকেলে ঐতিহাসিক ৭ মার্চ জনসভা সফল করার লক্ষ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মিলনায়তনে এক প্রস্তুতি সভায় তিনি এসব কথা বলেন। এসময় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, কাউন্সিলর হুমায়ুন কবির ও মহিলা কাউন্সিলর ফারহানা ইসলাম প্রমুখ।

বিএনপির পৃষ্ঠপোষকতায় ২০১৪ সালে নির্বাচনকে সামনে রেখে দেশে একটি অপশক্তি মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছিল বলে মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, কে বা কারা অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওপর হামলা করেছে বা করিয়েছে তা ইতিমধ্যে পরিষ্কার। এ হামলা দেশে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরির অশুভ ইঙ্গিত।

তিনি আরো বলেন, ‘হামলাকারীদের স্বরূপ উন্মোচিত হয়ে গেছে। তাদের পৃষ্ঠপোষক দলটির (বিএনপি) মহাসচিব বলছেন, খালেদা জিয়ার ঘটনাকে আড়াল করার জন্য জাফর ইকবালের ওপর হামলা করা হয়েছে। কিন্তু ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তাদের সাথে সাথে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জাফর ইকবালের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে এবং এয়ার অ্যাম্বুলেন্স এর মাধ্যমে তাকে ঢাকায় আনা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নিজে চিকিৎসার খোঁজখবর নিচ্ছেন এবং তিনি আজকে জাফর ইকবালকে দেখতে হাসপাতালেও গিয়েছেন।’

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘মায়ের চেয়ে ফখরুল সাহেবের কাছে মাসির দরদ বেশি। তার বক্তব্য শুনে এটাই বুঝা যাচ্ছে। আমি উনার প্রতি আহ্বান রেখে বলবো- এইসব অপশক্তিকে পৃষ্ঠপোষকতা দেয়া বন্ধ করুন।’

২০১৪ সালে বিএনপির নির্বাচন বর্জন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘২০১৪ সালে যে ভুল করেছে বিএনপি তার মাশুলে এখনও দিচ্ছে। বিএনপি এই সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে পৃষ্ঠপোষকতা অব্যাহত রাখলে আগামী নির্বাচনেও জনগণ ভোটে-ব্যালটে সমুচিত জবাব দেবে।’

৭ মার্চ জনসভা সফলের লক্ষ্যে নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে কাদের বলেন, ‘মার্কেট বন্ধ করে, রাস্তা বন্ধ করে সমাবেশে যেতে হবে এটা আমরা বলিনি। জনসভার দিন রাস্তার একপাশ খোলা থাকবে। যেন জনগণের দুর্ভোগ না হয়।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা নিয়ে মিডিয়ার একটি অংশ বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রচার করছে না বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রচারের জন্য মিডিয়ার প্রতি আহ্বান জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, মিডিয়ার একটি অংশ প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় লোকারণ্য নিয়ে বস্তুনিষ্ঠ খবর প্রচার করছে না। অনেক সময় জনসভায় আগত লোকসংখ্যা নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা হচ্ছে, যা মিডিয়ার নীতির মধ্যে পড়ে না।

মিডিয়ার সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমাদের দেশে মিডিয়ার একটি অংশ একটি দলের পক্ষ হয়ে কাজ করছে। সব মিডিয়া বলছে চারটি বিভাগীয় শহরের জনসভা হয়েছে রেকর্ডসংখ্যক, যা আগে হয়নি। কিন্তু কোনও কোনও সংবাদমাধ্যম সত্যকে বিকৃত করে প্রকাশ করছে। যেন বিশাল জনসভা বলতে তাদের লজ্জা লাগে। আমি মিডিয়ার সাথে বৈঠককালে বলেছি আমাদের যা প্রাপ্য তা দিতে হবে। সেই বৈঠকে তথ্যমন্ত্রীও ছিলেন।’

মিডিয়ার সাথে সরকার লড়াই করতে চায় না মন্তব্য করে মন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমরা মিডিয়ার সাথে ঝগড়া করতে চাই না। মিডিয়া অবশ্যই গঠনমূলক সমালোচনা করবে। কিন্তু কিছু মিডিয়া সরাসরি একটা দলের পক্ষ হয়ে আদাজল খেয়ে লেগেছে। মিডিয়া আমাদের প্রতিপক্ষ নয়। সমালোচনা আমরা শুনবো, যদি সেটা গঠনমূলক হয়।’






সঙ্গতিপূর্ণ আরো খবর

  • অক্টোবরেই নির্বাচনকালীন সরকার : ওবায়দুল কাদের
  • দেশের সাংবিধানিক ধারাকে আমরা জলাঞ্জলি দিতে পারি না : সেতুমন্ত্রী
  • দলের প্রয়োজনে নির্বাচন করবো: অর্থমন্ত্রী
  • খালেদা জিয়া অন্যের সাহায্য ছাড়া হাঁটতে পারছেন না: ফখরুল
  • সেনা মোতায়েনের পরিস্থিতি হলে সরকার সিদ্ধান্ত নেবে: কাদের
  • সামরিক পরিবারের সদস্য হয়েও সিএমএইচে বিশ্বাস নেই খালেদার: ওবায়দুল
  • চিকিৎসা নয় মূলত রাজনৈতিক ইস্যু খুঁজছে বিএনপি: সেতুমন্ত্রী
  • যথাসময়ে নির্বাচন হবে: প্রধানমন্ত্রী