দেবহাটার বহেরা টু শশাডাঙ্গা রাস্তায় চলাচলের ভোগান্তি চরমে

Share Button

এমএ মামুন, দেবহাটা ::
বেহাল দশা বহেরা টু শশাডাঙ্গা সড়কটির। উপজেলার কুলিয়া ইউনিয়নের বহেরা বাজার হতে শশাডাঙ্গা, সুবর্ণাবাদগামী সড়কটি একেবারে সাধারণ মানুষের চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এতে করে একদিকে যেমন প্রতিনিয়ত ঘটে চলেছে সড়ক দূর্ঘটনা। অন্য দিকে ধুলা আর বালুতে অতিষ্ট হয়ে পড়েছে রাস্তার দু’পাশের বসবাসকারী সাধারণ মানুষ। যেনো দেখার কেউ নেই? এমনটি অভিযোগ পথচারী ও স্থানীয়দের। তবে রাস্তাটি নষ্টে স্থানীয় প্রভাবশালীদের জড়িত থাকায় কেহ প্রতিবাদ করতে সাহস পায় না বলে অভিযোগ উঠেছে।

সরেজমিনে দেখা মিলেছে, সরকারি রাস্তা কেটে এবং পিচের রাস্তার পাশে গভীর করে মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে স্থানীয় ইটভাটায়। আর ইট ভাটার মাটি নিয়ে যাচ্ছেন স্থানীয় যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাবশালী সাইফুল ইসলাম। বিভিন্ন ইটভাটার মাটির এজেন্ট নিয়ে অবৈধ্য যানবহনে মাটি সরবাহ করেন তিনি। আর এতে উপজেলা বহেরা বাজার হতে শশাডাঙ্গা, সুবর্ণাবাদগামী সড়কটিতে অতিমাত্রায় ট্রলি ও ভারী ট্রাক চলাচল করায় সড়কটি এখন ধ্বংশের দ্বারপ্রান্তে। মাঝে মাধ্যে রাস্তায় সৃষ্টি হওয়া বড় বড় গর্তের সৃষ্টিতে জন ভোগান্তি চরমে উঠেছে। সড়কটিতে প্রতিদিন সকাল থেকে শুরু করে সন্ধা পর্যন্ত শত শত ট্রলি আর ভারী ট্রাক যাতায়তের ফলে সড়কটির উভয় পাশে বসবাসকারী মানুষেরা পড়েছে মহাবিপাকে। শুকনোর সময় ধুলা আর বৃষ্টিতে পিচের রাস্তায় কাঁদা সৃষ্টি হওয়ায় চরম দূর্ভোগে পৌঁছে গেছে। রাস্তাটি নষ্ট হওয়ায় ইতিমধ্যে এই সড়ক দিয়ে যাতায়াত না কওে গন্তব্যে পৌছানোর জন্য বিকল্প ভিন্ন ভিন্ন সড়ক ব্যবহার করতে বাধ্য হচ্ছে।

সড়কটি ব্যস্ততম হওয়ায় দূর্ভোগের শেষ নেই। বর্তমান সড়কটি এখন মরণ ফাঁদ! বর্ষার পানি রাস্তায় জমে থাকা ময়লা কাদা মাটি আর শুকনার ধুলা বালিতে পড়ে স্কুল ও কলেজ পড়–য়া কোমল মতি ছাত্র-ছাত্রীরা যাতায়াতে প্রতিদিন পড়ছে মহাবিপাকে। সাথে সাথে দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে সুবর্ণাবাদ, টিকেট, আন্দুলপোতা, গোফরাখালি, হিরারচক, চরবালিথা, শ্যামনগরসহ ১০/১৫টি গ্রামের মানুষের। এছাড়া এসব এলাকার হাজার হাজার বিঘা মৎস্য ঘেরের মাছ নিয়ে আসতে হয় কুলিয়া সেড ও সাতক্ষীরায়। কিন্তু চলাচলের একমাত্র সড়কটি এখন প্রায় অযোগ্য হয়ে পড়ার উপক্রম। এতে করে একদিকে যেমন সাধারণ মানুষকে পোহাতে হচ্ছে নানা রকম ভোগান্তি অন্যদিকে তেমনি জনসাধারণের কাছে সরকারের ভাবমূর্তি দারুন ভাবে ক্ষুন্ন হচ্ছে বলে মনে করেন সচেতনমহল। এ সমস্যার কারণে আগামী জাতীয় নির্বাচনে বর্তমান সরকারের দলীয় প্রার্থীর উপরে এর প্রভাব পড়তে পারে তাদের ধারণা।

বিষয়টি স্থানীয় ও পথচারীদের সাথে কথা বললে জানায়, স্থানীয় যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম রাস্তার পাশের মাটি স্কেভেটর মেশিন দিয়ে মাটি কেটে ট্রলি ও অধিক ক্ষমতা সম্পন্ন ট্রাকে করে মাটি নিয়ে যান ইট ভাটায়। তিনি প্রভাবশালী হওয়ায় প্রতিবাদ করতে সাহস পায় না। শুনেছি রাস্তার কাজ শুরু হবে। কিন্তু কবে থেকে শুরু হবে তা নিয়ে শংকিত তারা। তবে রাস্তা নষ্ট হওয়ায় চরমভোগান্তিতে দিন পার করছেন তারা। আগামী বর্ষার মৌসুমে চলাচল বন্ধ হয়ে গেলে দূর্ভোগের শেষ থাকবে না বলেও জানান স্থানীয়রা। কুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি ইউনিয়ন পরিষদ থেকে অনুমতি নিয়ে ট্রলিতে মাটি নিয়ে যাচ্ছি। শুধু আমি না আরো অনেকে এ কাজ করছে। তবে আপনারা নিউজ করতে হলে বস্তুনিষ্ট নিউজ করেন।

এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত ইউপি চেয়ারম্যান বিকাশ সরকার বলেন, গ্রামের এ সড়ক দিয়ে ভাটার মাটি বহনকারী অতিরিক্ত ট্রলি ও ট্রাক চলাচলের ফলে রাস্তাটি ধ্বংশের দারপ্রান্তে। যার ফলে ভ্যান, সাইকেল, মোটর সাইকেল সহ সাধারণ মানুষের চলাচলে বিঘিœত হচ্ছে। আমাদের নিষেধ অমান্য করে জোর খাঁটিয়ে মাটিবহন করায় বিভিন্ন স্থানে সমালোচনায় সাধারণ মানুষ জনপ্রতিনিধিদের উপর থেকে আস্থা হারিয়ে ফেলেছে। আমরা টেন্ডারের জন্য ইতোমধ্যে কথা বলেছি। হয়তবা দ্রুত কাজ শুরু হবে। আমি সোমবার উপজেলা সমন্বয় সভায় বিষয়টি তুলে ধরব।






সঙ্গতিপূর্ণ আরো খবর

  • দেবহাটায় দুস্থ, অসহায় মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ
  • দেবহাটায় ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত
  • দেবহাটা থানা পুলিশের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সচেতনতা মুলক ক্লাস রুটিন বিতরন
  • দেবহাটায় ১০পিচ ইয়াবাসহ আটক ৪
  • দেবহাটায় কোটা ব্যবস্থা বাতিলের প্রতিবাদে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন
  • দেবহাটায় প্রতিবন্ধীদের মানউন্নয়নে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়
  • সাতক্ষীরার দেবহাটায় তিন মাদক সেবীর কারাদন্ড