ভূমিহীনদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় স্বেচ্ছাশ্রমে কাজ করছে ভূমি কমিটি

Share Button

তালা প্রতিনিধি : খাসজমি সরকারের সম্পত্তি। সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী এই জমি ভূমিহীনদের মধ্যে সরকারিভাবে বিতরণ হয়ে থাকে।

সম্প্রতি তালা উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সরকারি কর্মকর্তা, বিভিন্ন পেশাজীবী ও নাগরিক সমাজের সাথে এক মতবিনিময় সভায় সাতক্ষীরার বর্তমান জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইফতেখার হোসেন বলেন, সাতক্ষীরা জেলায় প্রচুর পরিমাণ খাসজমি রয়েছে। যেটা নিয়ম অনুযায়ী ভূমিহীনদের মাছে বন্টন করা সম্ভব। তাঁর এই বক্তব্যে সাতক্ষীরাবাসী অনেকটা স্বস্তিবোধ করছে। কারণ, সাতক্ষীরা জেলা অতীতে এমন সময় পার করেছে, যখন এই খাসজমি নিয়ে নিয়মিত লড়াই সংগ্রাম চলতো।

১৯৯৮ সালে ২৭ জুলাই খাস জমি নিয়ে এক লড়াইয়ে দেবহাটার বাবুরাবাদে জায়েদা খাতুন নামের এক ভূমিহীন নারী প্রাণ হারান এবং ২২৯ জন ভূমিহীন নারী-পুরুষ বিভিন্নভাবে আহত হন। এ ঘটনায় সাতক্ষীরাকে শান্ত রাখতে খাসজমি ভূমিহীনদের মধ্যে বিতরণ সময়ের দাবী হয়ে ওঠে। বিষয়টি বিবেচনায় এনে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের অন্যতম বে-সরকারী উন্নয়ন সংস্থা ‘উত্তরণ’ ২০০৪ সালে একটি কর্মসূিচ হাতে নেয়। উক্ত কর্মসূিচর মধ্য দিয়ে খাসজমি বিতরণ ও বন্দোবস্তে প্রশাসনকে নানাভাবে সহযোগিতা করা হয়। আর এই সহযোগিতায় উত্তরণ-এর পাশাপাশি কাজ করে নাগরিকদের সমন্বয়ে গঠিত ‘ভূমি কমিটি’।

ভূমি কমিটি মূলত: সমাজের প্রতি দায়িত্বশীল এবং গ্রহণযোগ্য বিভিন্ন পেশাজীবীদের সমন্বয়ে গঠিত একটি কমিটি। যেখানে শিক্ষক, আইনজীবী, সাংবাদিক, এনজিও প্রতিনিধি, নারী সংগঠন, সাংস্কৃতিক কর্মী ইত্যাদি যুক্ত রয়েছেন। ২০০৪ সাল থেকে কমিটির সদস্যরা সাতক্ষীরা ও খুলনা জেলা এবং উপজেলা পর্যায়ে কাজ করে চলেছে। উপজেলা পর্যায়ের কমিটি সদস্যরা খাসজমি বিতরণের ক্ষেত্রে প্রশাসনের সাথে মিটিং, অবৈধ দখলদারদের সম্পর্কে ভূমি অফিসকে তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করা, ভূমিহীনদের তালিকা প্রণয়নে সহায়তা ইত্যাদি কাজ করেন।

তাছাড়া ভূমিহীনদের খাসজমি পাওয়ার ক্ষেত্রে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ভূমিহীন সার্টিফিকেট সংগ্রহ, আবেদন ফরম পূরণ, সহি-স্বাক্ষরসহ উপজেলা ভূমি অফিসে জমাদান প্রক্রিয়া সহযোগিতাও করেন। একই সাথে বন্দোবস্ত প্রক্রিয়া কোন কারণে থমকে গেলে সেই জট ছাড়াতেও ভূমিকা রাখেন। ফলে ভূমিহীনরা হয়রানী থেকে রেহাই পায়।

বিগত ২০০৪ সাল থেকে প্রশাসন খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলার প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার ভূমিহীন পরিবারকে এ পর্যন্ত স্থায়ী বন্দোবস্ত প্রদান করেছে। পাশাপাশি মৎসজীবী পরিবারগুলো সরকারের কাছ থেকে বছর বছর জলমহাল লীজ নিয়ে মাছ চাষ করছে। এই সকল ভূমিহীন পরিবারের পাশে কাজ করছে ‘ভূমি কমিটি’।

তালা উপজেলা ভূমি কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এম ময়নুল ইসলাম বলেন, কমিটি শুধু খাসজমি নিয়ে ভূমিহীনদের সাথে কাজ করছে এমনটি নয়। তারা সরকারের সেপটিনেট কর্মসূচী সঠিকভাবে বাস্তবায়নে ভূমিহীন তালিকা কাজে লাগাচ্ছেন।

তিনি আরো বলেন, ভূমি কমিটি নিয়মিতভাবে উপজেলা, জেলা ও কেন্দ্রীয় পর্যায়ে মিটিংসহ বিভিন্ন সভা ও কর্মসূচি পালন করে আসছে। শুধু তাই নয়, ভূমি কমিটির ভূমিকার কারণে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে এক সময়ের ভূমিহীন আন্দোলনে উত্তপ্ত এলাকায় বর্তমানে শান্তি বিরাজ করছে।

সাতক্ষীরা জেলা ভূমি কমিটির সভাপতি এড. আবুল কালাম আজাদ বলেন, সরকারী কৃষি খাস জমিতে ভূমিহীনদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা রাখার পাশাপাশি ভূমি কমিটি সরকারের মাঠ পর্যায়ে বিভিন্ন কাজে স্বেচ্ছাশ্রমে সহযোগিতা করে থাকে।






সঙ্গতিপূর্ণ আরো খবর

  • তালায় দু’মেধাবী ছাত্রীকে আর্থিক সহায়তা প্রদান
  • তালায় ভাবীকে অপহরণ করে শ্লীলতাহানি অভিযোগ : হাসপাতালে ভর্তি
  • তালায় পৃথক স্থানে বজ্রপাতে দু’জনের মৃত্যু
  • তালায় আন্তঃ জেলার ডাকাত সদস্য গ্রেফতার
  • জাতীয় পর্যায়ে সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় তালার তিন শিক্ষার্থীর সাফল্য
  • তালায় ১৮০ শিক্ষার্থীদের মাঝে টিপিন বকস্ বিতরণ
  • তালায় স্ত্রীর মর্যাদা, ভরণপোষনের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন
  • বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ তালা উপজেলা শাখার কমিটি গঠন