আশাশুনি বাগদা চিংড়ীতে অপদ্রব্য পুশ অবাদে চলছে : পুশ বন্দে কার্যকর পদক্ষেপ প্রয়োজন

Share Button

আশাশুনি প্রতিনিধি ::
আশাশুনি উপজেলার সকল ইউনিয়নে বাগদা চিংড়ীতে অপদ্রব্য পুশের কারবার অবাদে চলছে। ফলে উপজেলা থেকে একেজি চিংড়ীও এখন রপ্তানির জন্য যাচ্ছে কিনা সন্দেহ রয়েছে।

উপজেলার সকল ইউনিয়নে চিংড়ী চাষ বা চিংড়ী ব্যবসা কেন্দ্র গড়ে উঠেছে। এসব কেন্দ্রের পাশাপাশি বিভিন্ন বাড়িতে কিংবা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পাশে ছোট্ট ঘরের মধ্যে মাছে পুশের কারবার হয়ে থাকে। পুশকৃত মাছ ড্রামের মধ্যে কিংবা বক্সে পলিথিন পেপারে মুগিয়ে ভিজিয়ে খুলনা. চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন স্থানের ফ্যাক্টরিতে পাঠানো হয়ে থাকে। পুশ করা নিষিদ্ধ ও মাছ ভেজানো নিষেধ থাকলেও সবকিছু অবাদে করা হচ্ছে। প্রকাশ্য সড়কের উপর দিয়ে ট্রাকে করে এসব মাছ নিষিদ্ধ পলিথিনে ভিজিয়ে পাঠানো হলেও তা প্রতিরোধ করা হচ্ছেনা।

প্রশাসন, মৎস্য অধিদপ্তর ও পুলিশ ইচ্ছে করলেই এসব মাছ আটক করতে সক্ষম। বাড়িতে বাড়িতে, কিংবা ব্যবসা কেন্দ্রে কিংবা ট্রাক আটকালেই ময়দা, জেলি, সাবু, ভাতের মাড়, চিড়ার কথ, পুুইশাক পাতার রস, এ্যারারুট, কথিলা, ওলন সহ নানারকম রাসায়নিক দ্রব্যাদি পুশ কৃত মাছ পাওয়া যাবে। এসব অপদ্রব্য স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই ক্ষতিকর। ব্যবসায়ীরা জানান, মাঝারি ধরনের ১কেজি বাগদায় ২৫০-৩০০ গ্রাম অপদ্রব্য পুশ করা যায়।

উপজেলার দরগাহপুর কালাবাগি বাজার, আশাশুনির হাড়িভাঙ্গা সেট, শ্রীউলার মহিষকুড়, মাড়িয়ালা সেট, কুল্যার মহিষাডাঙ্গা সেট, কাদাকাটির তেতুঁলিয়া বাজার, শোভনালীর বসুখালী, শালখালী, বদরতলা, বুধহাটার চাপড়া, মহেশ^রকাটি, পাইথালী, আনুলিয়ার কাকবাসিয়া, গোরালী, একসরা, বিছট, বল্লভপুর, খাজরার মনিপুর, বাগালী, ভোলানাথপুর, সেটে এখন এসব পুশের কারবার ও বেচা-কেনা হয়। দেশের সাদাসোনা খ্যাত এ শিল্পের ক্ষতি করে কিছু লোক মোটা মুনাফা কামাচ্ছেন। আর বিদেশে নষ্ট হচ্ছে বাংলাদেশের মাছের মান। এভাবে চলতে থাকলে চরম হুমকির মুখে পড়তে বাধ্য দক্ষিণ বাংলার সাদাসোনা শিল্প ও এর সাথে জড়িত চাষী, জমির মালিকসহ হাজার হাজার শ্রমিক পরিবার।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক পুশ ব্যবসায়ী জানান, আমরা পুশ করতে কিংবা পুশকৃত মাছ ক্রয় করতে বাধ্য হচ্ছি। কোম্পানী যদি পুশ মাছ কেনা বন্ধ করে দেয়, তাহলে পুশ করার কিংবা পুশকৃত মাছ ক্রয়ের প্রশ্নই ওঠে না। এছাড়া অনেক খরচ আছে, মাসিক হারে উপর নিচের অনেককে ম্যানেজ করতে হয়। এসবের পর মাস গেলে আমাদের তেমন কিছুই থাকে না। আপনারা লিখে কোম্পানীদের পুশ মাছ কেনা বন্ধ করুন। তাহলে এমনিতেই বন্ধ হয়ে যাবে।






সঙ্গতিপূর্ণ আরো খবর

  • আশাশুনিতে মাদকদ্রব্যসহ আটক- ২
  • আশাশুনি ৩২ মিঃ খোলা ড্রেনের জন্য একটি মহল্লা সদস্যা জর্জরিত
  • আশাশুনি পুরাতন জামে মসজিদে অর্থ বরাদ্দ
  • আশাশুনিতে বজ্রপাতে এক মহিলার মৃত্যু
  • আশাশুনিতে সাজাপ্রাপ্ত জামাত নেতা গ্রেফতার
  • আশাশুনিতে ফেন্সিডিল ও ইয়াবাসহ গ্রেফতার ২
  • আশাশুনি নবগঠিত ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল ও পথসভা
  • আশাশুনিতে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ