আর কত বয়স হলে বয়ষ্ক ভাতা পাবে কৈখালীর গুরুচরণ-কৈাশল্যা

Share Button

আব্দুল আলিম ::
ভোটার আইডি কার্ডের তথ্যে গুরুচরণ গাইনের জন্ম তারিখ(১৫-০৮-১৯৪০) আইডি নং ৮৭১৮৬৪৭২৭১২১৮ এবং তার স্ত্রী কৈশল্যা রানী গাইনের জন্ম তারিখ-০৫-০৬-১৯৫১ আইডি নং-৮৭১৮৬৪৭২৭১২১৯ ।

ধনী ও সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্ম নেওয়া যে পাপ শ্যামনগর উপজেলার কৈখালী ইউনিয়নের ০৬ নং ওয়ার্ডের পরানপুর গ্রামের বাসিন্দা ৭৬ বছর বয়ষ্ক হতদরিদ্র গুরুচরন গাইনের ধারণা এমনটি।

এক সময়ে তার বাপ ও ঠাকুর দাদার সম্পত্তি ও জমি জমার পরিধি ছিল অনেক বিস্তর। কিন্তু আজ সব শেষ হয়ে সামান্য ভিটায় এসে ঠেকেছে। দরিদ্র সীমার অনেক নীচে বাস করেন এখন। কালের কুটিল চক্র ও সময়ের শাসনে সামান্য পৈত্রিক ভিটার জীর্ণ কুটিরে মৃত পথ যাত্রী গুরুচরণ গাইন এখন মৃত্যুর প্রহর গোনেন।

সরকারী কোন সহায়তা সে পাচ্ছে কিনা জানতে চাইলে দু-চোখ জলে ভাসিয়ে তিনি বলেন সরকারী সহায়তা চেয়ে তিনি আর কত লাঞ্চিত ও অপমানিত হবেন।

ইতপূর্বে তিনি পরিচিত অনেক দায়িত্বশীলদের কাছে সরকারী সাহায্য চেয়েছেন। কিন্তুু ভাগ্য তার সহয় হয়নি। বারবারই হয়েছেন হতাশ। কেন পাচ্ছেন না জানতে চাইলে তারা তার বাপ ও ঠাকুর দাদার স্বচ্ছলতার কথা বলেন এবং এবং তিনি কেন সরকারী সাহায্য পাবেন এমন প্রশ্ন তার দিকে ছুড়ে দেন।

তার চেয়ে কম বয়ষ্ক ও সচ্ছল,সুস্থ ব্যক্তিরা বয়ষ্কভাতা ও সরকারী অনান্য সহায়তা পান এসব বলতে গিয়ে কষ্টে তার দু-চোখ জ্বলে ভরে যায়। এক মাসের ও অধিক সময় ধরে দৈনিক ৪ থেকে ৫ শত টাকার ঔষধ খেতে হয় অসুস্থ গুরুচরণ গাইনের।

সংসারে একমাত্র উর্পাজনক্ষম কন্যা যে বিগত কয়েক বছর ধরে নৌকায় নদীতে জালে মাছ ধরে সংসার নির্বাহ করত সেও এখন মারাত্মক অসুস্থতা নিয়ে নৌকাজাল বিক্রি করে এখন অসুস্থ বাবার দেকভাল করছেন। নিজের বাবা মায়ের কথা চিন্তা করে কুমারিত্বকে বরন করেছেন। আজকের সমাজে এমন কন্যা সন্তান তো দেখাই যায়না।

এদিকে ৬৪ বছর বয়ষ্কা গুরুচরণ গাইনের স্ত্রী কৌশল্যা রানী গাইন ও অসুস্থ দীর্ঘদিন যাবৎ। বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেন্ত্রী শেখ হাসিনার ক্ষুধা দারিদ্র মুক্ত ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে দুস্ত,হতদরিদ্র অসহয় পরিবারের জন্য যে নানাবিধ কর্মযজ্ঞ এ সুবিধা গুলো থেকে বঞ্চিত হয়ে যেন মানবতা ও বিবেক কে হার না মানায় কৈখালীর গুরুচরণ ও কৌশল্যা রানী গাইনের অসহয় পরিবারের করূন চিত্র।

এ বিষয়ে কৈখালী ইউনিয়নের ০৬ নং ওয়ার্ডের মেম্বর পবিত্র কুমার মন্ডলের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, গুরুচরণ গাইনের নাম বয়স্ক ভাতার অপেক্ষমান তালিকায় রয়েছে।

গুরুচরণ গাইনের স্ত্রী কৌশল্যা রানী ভাতা প্রাপ্তির জন্য সরকার নির্ধারিত বয়স সীমার চেয়ে এক বছর অতিক্রম করলেও এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে মেম্বর পবিত্র কুমার মন্ডল জানান, তাকে কোন তালিকায় এখোনো নেওয়া হয়নি, নতুন তালিকা হলে নেওয়া হবে।

যাহোক কবে নাগাত অপেক্ষমান তালিকায় থাকা গুরুচরণ গাইন এবং সব ধরনের তালিকার বাইরে থাকা তার স্ত্রী কৌশল্যা রানী ভাতা পেতে পারেন তা নিশ্চিত নয়। এ বিষয়ে গুরুচরণ বলেন, আমি মরে গেলে হয়তো এই অপেক্ষার শেষ হবে। ভাঙা ঘরে বাস করি, এক বেলা খাই তো দুইবেলা না খেয়ে থাকি। আমরা হয়তো সরকারী সহযোগিতা পাওয়ার যগ্য না।

সরকারের নানাবিধ সহায়তা, আশ্রায়ণ ও গৃহয়াণ প্রকল্প, ভাতা বা খাদ্য সহায়তার মাধ্যমে এই হত দরিদ্র পরিবারটির মুখে একটু হাসি ফুটুক এই প্রত্যাশা করে শ্যামনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আর্কষণ করেছেন এলাকার সুধিসমাজ






সঙ্গতিপূর্ণ আরো খবর

  • কৈখালীতে বয়স্ক ভাতা পরিশোধ বহি প্রদান
  • শ্যামনগরে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধভাবে পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালিত
  • শ্যামনগরে বজ্রপাতে নিহত ২
  • শ্যামনগরে মাদক সিন্ডিকেট নেতা হাসান গ্রেফতার
  • নুরনগর ইউপি উপ নির্বাচনে জয়ী প্রার্থীর শপথ গ্রহন অনুষ্ঠিত
  • শ্যামনগরে মাদক বিরোধী প্রীতি ফুটবল ম্যাচ
  • বৈরী অাবহাওয়ায় শ্রমিকবেশে এমপি জগলুল