প্রেমের ফাঁদে ফেলে বাড়িতে আটক রেখে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবী, গ্রেফতার-১,

363

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ঃ প্রেমের ফাঁদে ফেলে এক গৃহবধূ সাতক্ষীরার এক যুবককে বাড়িতে আটকে রেখে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করার সময় তার স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার কাথন্ডা গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় পালিয়ে গেছে সুচতুর ওই গৃহবধূ জাহানারা খাতুন।
গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির নাম সিরাজুল ইসলাম মোড়ল (৪৫)। তিনি যশোরের কেশবপুর উপজেলার কাথন্ডা গ্রামের ইন্তাজ আলী মোড়লের ছেলে।
পুলিশ জানায়, সাতক্ষীরা শহরের পলাশপোল এলাকার যুবক গাউসুল আযম সাকিলের সাথে মোবাইলে পরকিয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন কেশবপুরের কাথন্ডা গ্রামের সিরাজুল ইসলাম মোড়লের স্ত্রী গৃহবধূ জাহানারা খাতুন। মোবাইলে প্রেমের এক পর্যায়ে ওই গৃহবধূ গত রোববার কুরবানীর মাংশ খাওয়ার জন্য দাওয়াত করেন যুবক সাকিলকে। সাকিল যথারিতী সেখানে যায় দাওয়াত খেতে। এক পর্যায়ে ওই গৃহবধূ ও তার স্বামী দু জন মিলে তাকে ঘরে আটকে রেখে তার (সাকিলের) মোবাইল থেকে তার পরিবারের কাছে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবী করে। বিষয়টি সাথে সাথেই সাকিলের বাবা সিরাজুল ইসলাম সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশকে অবহিত করেন। এরপর পুলিশ কৌশলে সাকিলেরর পরিবারের পক্ষ থেকে ওই গৃহবধূর সাথে মোবাইলে কথা বলে একটি বিকাশ নাম্বার চান দাবীকৃত টাকা পরিশোধের জন্য। পুলিশ প্রথমে ওই বিকাশ নাম্বারে ১০ হাজার টাকা বিকাশ করেন। এরপর পুলিশ সাদা পোশাকে কেশবপুর পুলিশের সহায়তায় ওই বিকাশ নাম্বারটি খঁজে সেখানে ওৎ পেতে বসে থাকেন। একপর্যায়ে ওই বিকাশ কাউন্টার থেকে টাকা নেয়ার সময় পুলিশ ওই গৃহবধূর স্বামী সিরাজুলকে আটক করেন। এসময় পালিয়ে যেতে সক্ষম হন ওই সুচতুর গৃহবধূ জাহানারা খাতুন।

সাতক্ষীরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় যুবক সাকিলের বাবা বাদী হয়ে আটক সিরাজুল ও তার স্ত্রী জাহানারার বিরুদ্ধে মঙ্গলবার সকালে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

শেয়ার করুন ..