সাতক্ষীরায় টিআইবির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

163

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যামনাল বাংলাদেষ টিআইবি সকলের সাথে সুসম্পর্ক রেখেই তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে অনিয়ম ও দুর্নীতিরোধে কাজ করে বলে মন্তব্য করেছেন কর্মকর্তারা।

তারা বলেন, টিাইবি কোনো পক্ষ নেয় না , টিআইবি শুধু অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলে। এ প্রসঙ্গে তারা আরও বলেন সমাজের দুর্নীতি প্রতিরোধে সংবাদকর্মীরা জোরালো ভূমিকা রাখতে পারেন । সব ধরনের দুর্নীতির চিত্র তুলে ধরে তারা সচেতনতার সৃষ্টি করে সমাধানের পথও দেখিয়ে দিতে পারেন । কারণ সংবাদকর্মী এবং টিআইবি ও সনাকের লক্ষ্য এক ও অভিন্ন। তাদের মধ্যে আদর্শগত কোনো পার্থত্য নেই বলেও জানান তারা।

শুক্রবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন উদ্যোক্তারা । তারা বলেন দুর্নীতিকে চিহ্ণিত করা দরকার । এর বিরুদ্ধে সম্মিলিতভাবে কথা বলা প্রয়োজন। বিষয়গুলি নিয়ে যত বেশি পর্যালোচনা করা যাবে ততোই দুর্নীতির খোলস উন্মুক্ত হবে। এর ফলে দুর্নীতির বাসাও ভঙ্গুর হয়ে যাবে।

সাতক্ষীরা সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) এর সহসভাপতি ভারতেশ্বরী বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সনাক সদস্য এড. একেএম শহীদ উল্লাহ, অধ্যক্ষ আবদুল হামিদ, অধ্যাপক ড. দিলারা বেগম, প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি এড. আবুল কালাম আজাদ, প্রথম আলোর কল্যাণ ব্যানার্জি, টিআইবির মো. ওলিউর রহমান, টিআইবি সাতক্ষীরার কর্মকর্তা আবদুল আহাদ প্রমুখ। এছাড়াও বিষয়ভিত্তিক কথা বলেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সুভাষ চৌধুরী, সাবেক সম্পাদক মমতাজ আহমেদ বাপী , সাবেক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জ্বল ও সাবেক সম্পাদক এম কামরুজ্জামান প্রমূখ সাংবাদিক। তারা দুর্নীতি বিরোধী প্রচারণায় স্ব স্ব অবস্থান তুলে ধরে বলেন সংবাদকর্মীরা নিয়মিতভাবে এ সংক্রান্ত রিপোর্টিং করে থাকেন। টিআইবি তার পর্যবেক্ষণে কিছু এলে তা যদি যথাযথভাবে মিডিয়াকর্মীদের কাছে পৌছে দেন তবে তা নিয়ে লেখালেখি করে জনমত সৃষ্টি করা সম্ভব।

মতবিনিময় সভায় বক্তারা আরও বলেন সর্বস্তরে দুর্নীতিবিরোধী চেতনার সৃষ্টি করতে হবে। সব সেবা কেন্দ্রের কর্মকান্ডের ওপর নজরদারি বৃদ্ধির আহবান জানিয়ে তারা বলেন সংবাদকর্মীরা নির্ভয়ে তাদের দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এ ক্ষেত্রে টিআইবি ও সংবাদ কর্মীদের মধ্যে সমন্বয় থাকতে হবে বলেও উল্লেখ করেন তারা।

মত বিনিময় সভায় টিআইবি কর্মকর্তারা বলেন তারা জলবায়ু অর্থায়নে সুশাসন বিষয়ক কাজ করছেন। এ ছাড়া সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল, সাতক্ষীরা পৌরসভা, সাতক্ষীরা রাজারবাগান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বদ্যিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানে কাজ করছে। তাদের দায়িত্বের মধ্যে রয়েছে তথ্যের অবাধ প্রবাহ, কর্মকর্তা কর্মচারিদের উপস্থিতি , নারী ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর সম্পৃক্ততা বৃদ্ধি, সেবা বিষয়ে অভিযোগ, অবৈধ লেনদেন, জেন্ডার বান্ধব সেবা, স্বচ্ছ ক্রয় ব্যবস্থা, সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি, প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশুদের হাজিরা ও অভিভাবকদের সচেতনতা বৃদ্ধিসহ নানা বিষয়ে কাজ করে দুর্নীতি ও অনিয়ম চিহ্ণিত করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এসব কাজে সংবাদকর্মীদের আরও সহায়তা দরকার জানিয়ে তারা বলেন সুশাসন প্রতিষ্ঠায় আমাদের আরও অনেকদুর হাঁটতে হবে।

আয়োজক কর্মকর্তারা বলেন সেবা খাতে যেমন জবাবদিহিতা থাকতে হবে তেমনি সব ক্ষেত্রে স্বচ্ছতারও বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে হবে। কর্মকর্তারা আরও বলেন ২০১৮ সালে টিআইবির কর্মক্ষেত্র আরও সম্প্রসারিত হবে। জেলার ১০৯৩ টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মা দল গঠন কার্যক্রম শুরু হয়েছে জানিয়ে তারা বলেন পর্যায়ক্রমে আরও নতুন নতুন কর্মসূচি নিয়ে টিআইবি জনগনের কাছে পৌছাতে চায়। এসব কাজে সংবাদকর্মীদের সহায়তা জরুরি বলেও মন্তব্য করেন তারা।

শেয়ার করুন ..