দেশে এবার এক দিনে মিলবে পাসপোর্ট!

4934

প্রবাসী শ্রমিক ছুটি শেষে বিদেশ যাচ্ছেন। বিমানবন্দরে গিয়ে দেখেন তার পাসপোর্টের মেয়াদ নেই। অথচ একদিন পর গেলেই তার চাকরি থাকবে না, জরুরি ভিত্তিতে পাসপোর্ট দরকার। জরুরি আজ করতে দিলেও কমপক্ষে এক সপ্তাহ সময় লাগবে। এখন এর কী সমাধান? মানুষের এসব জরুরি প্রয়োজনকে মাথায় রেখে এবার একদিনে পাসপোর্ট ডেলিভারির ব্যবস্থা চালু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর। তবে এর ফি ধরা হচ্ছে জরুরি পাসপোর্টের চেয়ে দ্বিগুণ বেশি।

সাধারণত একজন আবেদনকারী কমপক্ষে ২১ দিনে তিন হাজার ৪৫০ টাকা ফি পরিশোধ করে এবং ৬ হাজার ৯০০ টাকা দিয়ে এক সপ্তাহে পাসপোর্ট পেতে আবেদন করতে পারেন। আগামী বছরের জানুয়ারি থেকে আজ পাসপোর্টের জন্য আবেদন করলে আগামীকালই পাসপোর্ট পাওয়া যাবে। ‘সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারি’ ব্যবস্থার মাধ্যমে এ সেবা পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছে অধিদপ্তর।

বিষয়টি নিয়ে বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে ই-পাসপোর্টের সঙ্গেই চালু হবে নতুন এই সেবা। তবে শুধুমাত্র পুরাতন আবেদনকারী, মেয়াদোত্তীর্ণের কারণে রি-ইস্যু এবং যাদের পুলিশ ভেরিফিকেশন লাগবে না, তারাই একদিনের পাসপোর্টের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

‘সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারি’ আবেদনের জন্য পাসপোর্ট অধিদপ্তরের নির্ধারিত ‘রি-ইস্যু, তথ্য পরিবর্তন, সংশোধন আবেদন’ ফরমটি পূরণ করে জমা দিতে হবে।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন ও অর্থ) মোহাম্মদ শিহাব উদ্দিন খান বলেন, ‘পাসপোর্ট অধি্দপ্তরে ই-পাসপোর্ট নিয়ে গঠিত একটি কমিটি সাধারণ ও জরুরির পাশাপাশি “সুপার এক্সপ্রেস” নামে নতুন এক ধরনের ডেলিভারির প্রস্তাব দিয়েছে। এর মাধ্যমে আজকে আবেদন করলে আগামীকাল পাসপোর্ট পাওয়া যাবে। যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপের অনেক দেশেই পাসপোর্টের সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারি দেওয়া হয়। যাদের পাসপোর্ট পাওয়া খুবই জরুরি, তারা অতিরিক্ত টাকা দিয়ে এই ব্যবস্থায় পাসপোর্ট নিয়ে থাকেন।’

শিহাব উদ্দিন খান বলেন, ‘তবে যাদের পুলিশ ভেরিফিকেশনের প্রয়োজন নেই, আগের পাসপোর্ট আছে তারাই কেবল সুপার এক্সপ্রেসে ডেলিভারি পাবে। অনেক প্রবাসী শ্রমিক আছে যারা এয়ারপোর্টে গিয়ে দেখে তার পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ অথচ এক দিন পর গেলেই তাদের চাকরি হারাবে, তাদের জন্যই করা হচ্ছে এমন ব্যবস্থা।’

কত হচ্ছে সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারি ফি? বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে এ কর্মকর্তা বলেন, ‘সরকারের কাছে আমরা শুধুমাত্র সুপার এক্সপ্রেস ডেলিভারির প্রস্তাব করেছি, এর ফি কত হতে পারে তা এখনও প্রস্তাব করিনি। তবে ১৩ থেকে ১৪ হাজার টাকা প্রস্তাব করা হতে পারে। আবার ফি’র পরিমাণ ১২ হাজারও হতে পারে।’

বাংলাদেশ ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের সূত্রে জানা যায়, দশ বছর হচ্ছে ই-পাসপোর্টের মেয়াদ। এ পাসপোর্টের দুই ধরনের ক্যাটাগরি হচ্ছে। একটা ৪৮ পৃষ্ঠার অপরটা ৭২ পৃষ্ঠার। যারা বেশি পৃষ্ঠারটা নিতে চান তাদের ফি’টা একটু বেশি দিতে হবে।

শেয়ার করুন ..