ব্রহ্মরাজপুরে ক্যান্সার আক্রান্ত অসহায় সুফিয়া বাঁচতে চায়

298

নিজস্ব প্রতিনিধি : মোছাঃ সুফিয়া বেগম (৪৫)। বাড়ি সাতক্ষীরা সদরের ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়নের বড়খামার গ্রামে। স্বামী পরিত্যাক্তা হয়ে দীর্ঘদিন পিতার গ্রামে এক খন্ড জমি কিনে টালির ছাউনি দিয়ে কোন রকম বেড়া দিয়ে মাথা গোজার ঠাই
করেছে। পিতা মৃত শাহাজুদ্দিন মিস্ত্রি অনেক আগেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। ১২ ভাই-বোনের মধ্যে সুফিয়া সবার বড়। পিতার জমিতে বসবাসকারী ভাই-বোনদেরও অবস্থা নাজুক। নুন আনতে পান্তা ফুরায়। সুফিয়া খাতুন স্বামী পরিত্যাক্তা হওয়ার পর থেকে রাস্তায় ও মাঠে-ঘাটে শ্রম দিয়ে জীবন-জীবিকা নির্বাহ করতো। সুফিয়া খাতুনের এক ছেলে ও এক মেয়ে। মেয়েটি এখন গরীব জামাইয়ের সংসারে। ছেলেটির বয়স ১৭ বছর। সেই এখন অভাব-অনটনের সংসার জীবন বাঁচানোর তাগিদে কোনমতে নির্বাহ করছে। খুব দূর্বিসহ জীবন কাটাচ্ছে তারা।

গত রোজার ঈদের পরে সুফিয়া খাতুন অসূস্থ হয়ে সাতক্ষীরা, খুলনা ও ঢাকায় চিকিৎসা ও পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তার পেটের সন্তানের নাড়িতে ক্যান্সার আক্রান্তের বিষয়টি ধরা পড়ে। প্রথম দিকে চিকিৎসার খরচ যোগাতে গিয়ে সে নিঃস্ব হয়ে পড়েছে। চিকিৎসার খরচ যোগাতে না পেরে বাড়িতে শুয়ে শুয়ে মৃত্যুর প্রহর গুনছে। বর্তমানে ঔষধ কেনার সামর্থ নেই তার পরিবারের।
সুন্দর এই পৃথিবীতে তার বাঁচার আকুতি যেন এক নজর দেখলে যে কাউকে হৃদয়ে নাড়া দেবে। চিকিৎসার অভাবে মৃত্যু যন্ত্রনায় ছটফট করছে সুফিয়া। সুফিয়া বাঁচতে চায়। তার চিকিৎসার সাহায্যের জন্য সমাজের হৃদয়বান মানুষের কাছে আবেদন জানিয়েছে। সুফিয়া খাতুনের চিকিৎসকরা জানিয়েছে তার অপারেশনের জন্য ৩ লাখ টাকার প্রয়োজন। এই টাকাটা হলে সে পৃথিবীর আলো আরো কিছুদিন দেখতে পারবে বলে সুফিয়া খাতুনের কন্যা সাবিনা খাতুন এ প্রতিবেদককে জানান। সুফিয়া খাতুনের চিকিৎসার জন্য সব মহলের কাছে আর্থিক সাহায্য কামনা করা হয়েছে। সুফিয়া খাতুনের কন্যা মোছাঃ সাবিনা খাতুনের বিকাশ ০১৭৯৩-২৯৪৮৬৩ নম্বরে আর্থিক সাহায্য প্রেরন করা যাবে।

শেয়ার করুন ..