গাজীপুরে পোশাক শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ টিয়ারগ্যাস, রাবারবুলেট নিক্ষেপ।

215

সোহেল রানা,গাজীপুর প্রতিনিধিঃ
গাজীপুর মহানগরের হারিকেন এলাকায় নীট & নীটেক্স গার্মেন্টস কারখানার ১২০০ শ্রমিকের তিন মাসের বকেয়া বেতনের জন্য গত পাঁচ দিন থেকে আন্দোলন করে যাচ্ছে কারখানার শ্রমিকরা। এদিকে শনিবার রাতে কারখানার ভিতরে ট্যাপের পানি পান করে প্রায় শতাধিক শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পরে, এ সময় শনিবার রাতেই বকেয়া বেতন ও শ্রমিক অসুস্থ হওয়ার ঘটনা কে কেন্দ্র করে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ ও কারখানায় ভাংচুর করলে পুলিশ ও শ্রমিকদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। এদিকে রাতেই গুজব ছরিয়ে পরে যে ওই কারখানার পানি পান করে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।
শ্রমিক মৃত্যুর গুজব কে কেন্দ্র করে রবিবার সকাল নয় টা থেকেই হারিকেন এলাকার বেশ কয়েকটি কারখানার কয়েক হাজার পোশাক শ্রমিক বিচারের দাবীতে মহাসড়কে নেমে আসে,এ সময় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে বিভিন্ন প্রকার ব্যারিকেড সৃষ্টি করে যানবাহন চলাচল বন্ধ,গাড়ি ভাংচুর,টায়ারে আগুন ধরিয়ে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকে এছারাও বিভিন্ন পোশাক কারখানায় ইট-পাটকেল নিক্ষেপ ও ভাংচুর করে।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ টিয়ার শেল,রাবার বুলেট নিক্ষেপ ও লাঠি চার্জ করে,এ সময় দফায় দফায় শ্রমিক পুলিশ সংঘর্ষ হলে আহত হয় কমপক্ষে ৬০ জন।
এ ঘটনার পর থেকেই হারিকেনসহ আশেপাশের এলাকার প্রায় অর্ধশত কারখানা ছুটি ঘোষনা করা হয়েছে।
নীট & নীটেক্স কারখানার শ্রমিকরা দাবী করেন তাদের তিন মাসের বকেয়া বেতন না পরিশোধ করেই কারখানা স্থানান্তরের নোটিশ ও বিলডিং ভাড়া দেওয়ার বিলবোর্ড টানানো হয়েছে,আমাদের বকেয়া বেতনের কোন সমাধান না হওয়ায় এবং কারখানার পানির ট্যাংকে ঔষধ মেশানোতে, পানি পান করে আমাদের কয়েক’শ শ্রমিক অসুস্থ হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে তাই আজ আমরা বিচার ও বেতনের দাবীতে  রাস্তায় নেমেছি।
সকাল নয়টা থেকে চলমান এই আন্দোলন বিকাল তিনটার দিকে শ্রমিকদের একটি প্রতিনিধি দলের সাথে  কর্তিপক্ষের কথা হলে, শ্রমিকরা আন্দোলন স্থগিত ও সড়ক অবরোধ প্রত্যাহার করে।

শেয়ার করুন ..