৬.৯ মাত্রার ভয়াবহ ভূমিকম্প, নিহত ১৭

ইন্দোনেশিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় লম্বক দ্বীপে ৬.৯ মাত্রার শক্তিশালী একটি ভূমিকম্প আঘাত হেনেছে। যাতে এ পর্যন্ত অন্তত ১৭ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। মার্কিন ভূ-তাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা ইউএসজিএস এ তথ্য জানিয়েছে। ভূমিকম্পের পর জারি করা হয়েছে সুনামি সর্তকর্তা।

এই ভূমিকম্প অনুভূত হতেই রাস্তায় নেমে আসেন স্থানীয় বাসিন্দারা। মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানায়, কম্পনের উৎস ছিল ভূপৃষ্ঠের ১০ কিলোমিটার গভীরে।

ভূমিকম্পের পর পরই স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে সুনামির সতর্কতা জারি করা হয়। এছাড়া স্থানীয়দের উঁচু কোনও স্থানে আশ্রয় নেয়ার নির্দেশও দেয়া হয়।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ার হলিডে দ্বীপে প্রবল কম্পনে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, ভূ-অভ্যন্তরে শিলায় পীড়নের জন্য যে শক্তির সঞ্চয় ঘটে, সেই শক্তির হঠাৎ মুক্তি ঘটলে ভূ-পৃষ্ঠ ক্ষণিকের জন্য কেঁপে ওঠে এবং ভূ-ত্বকের কিছু অংশ আন্দোলিত হয়। এই রূপ আকস্মিক ও ক্ষণস্থায়ী কম্পনকে ভূমিকম্প বলে। কম্পন-তরঙ্গ থেকে যে শক্তির সৃষ্টি হয়, তা ভূমিকম্পের মাধ্যমে প্রকাশ পায়। এই তরঙ্গ ভূ-গর্ভের কোনও নির্দিষ্ট অঞ্চলে উৎপন্ন হয় এবং উৎসস্থল থেকে চতুর্দিকে ছড়িয়ে পড়ে। ভূমিকম্প সাধারণত কয়েক সেকেণ্ড থেকে এক/দু-মিনিট স্থায়ী হয়। মাঝে মাঝে কম্পন এত দুর্বল হয় যে, তা অনুভব করা যায় না। কিন্তু শক্তিশালী ও বিধ্বংসী ভূমিকম্পে ঘর-বাড়ি ও ধন-সম্পত্তির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয় এবং অসংখ্য প্রাণহানি ঘটে।

সাধারণ জ্ঞানে ভূমিকম্প শব্দটি দ্বারা যে কোন প্রকার ভূকম্পন জনিত ঘটনাকে বোঝায় – সেটা প্রাকৃতিক অথবা মনুষ্য সৃষ্ট যাই হোক না কেন। বেশিরভাগ ভূমিকম্পের কারণ হল ভূগর্ভে ফাটল ও স্তরচ্যুতি হওয়া কিন্তু সেটা অন্যান্য কারণ যেমন অগ্নিউৎপাত, ভূমিধস, খনিতে বিষ্ফোরণ বা ভূগর্ভস্থ নিউক্লিয়ার গবেষনায় ঘটানো আনবিক পরীক্ষা থেকেও হতে পারে। ভূমিকম্পের প্রাথমিক ফাটলকে বলে ফোকাস বা হাইপোসেন্টার। এপিসেন্টার হল হাইপোসেন্টার বরাবর মাটির উপরিস্থ জায়গা।

পৃথিবীর অভ্যন্তরে যেখান থেকে ভূকম্প-তরঙ্গ উৎপন্ন হয়, তাকে ভূমিকম্পের কেন্দ্র বলে। এই কেন্দ্র থেকে কম্পন ভিন্ন ভিন্ন তরঙ্গের মাধ্যমে সব দিকে ছড়িয়ে পড়ে। শিলার পীড়ন-ক্ষমতা সহ্যসীমার বাহিরে চলে গেলে শিলায় ফাটল ধরে ও শক্তির মুক্তি ঘটে। তাই প্রায়শই ভূমিকম্পের কেন্দ্র চ্যুতিরেখা অংশে অবস্থান করে। সাধারণত ভূ-পৃষ্ঠ থেকে ১৬ কিমি.-র মধ্যে এই কেন্দ্র অবস্থান করে। তবে ৭০০ কিমি. গভীরে গুরুমণ্ডল (Mantle) থেকেও ভূ-কম্পন উত্থিত হতে পারে।






সম্পর্কীত

  • সুদানে নৌকাডুবিতে ২২ শিক্ষার্থীর মৃত্যু
  • পাকিস্তানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর
  • সেপ্টেম্বরে রাশিয়া সফরে যাবেন চীনা প্রেসিডেন্ট
  • মার্কিন ইলেক্ট্রনিক পণ্য বর্জনের ঘোষণা দিল তুরস্ক
  • ভারতের লোকসভার সাবেক স্পিকার সোমনাথ আর নেই
  • জর্ডানে জঙ্গিবিরোধী অভিযানে নিহত ৪
  • যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ বাহিনী গঠনের পরিকল্পনা ঘোষণা
  • যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ বাহিনী গঠনের পরিকল্পনা ঘোষণা