সাতক্ষীরায় দুনীতি দমন কমিশনের শিক্ষা উপকরণ বিতরণ ও বিতর্ক প্রতিযোগিতা

131

আব্দুর রহমান ::
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক তরফদার মাহমুদুর রহমান বলেন, ‘শিশু-কিশোরদের সৎ, যোগ্য এবং সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। ত্রিশ লাখ শহিদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের স্বাধীনতার অর্ধ শতাব্দী পরে আমরা এখনও দুর্নীতিমুক্ত সমাজ উপহার দিতে পারিনি।

শিক্ষার্থীদের দুর্নীতি বিরোধী আইন প্রনয়ণ, প্রয়োগ ও তার বাস্তবায়নের জন্য সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সততা ও নিষ্ঠাবান হতে হবে। সততা সংঘ সম্পর্কে তোমাদের যে ধারণা তা যথেষ্ঠ, তবে সঠিকভাবে তোমরা তা পালন করবেন।’

সাতক্ষীরা পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের আয়োজনে দুর্নীতি দমন কমিশনের সহযোগিতায় শিক্ষা উপকরণ বিতরনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সাতক্ষীরা পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের নির্বাহী সদস্য ও প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সুভাষ চৌধুরী’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দুর্নীতি দমন কমিশন খুলনা আঞ্চলিক অফিসের ডেপুটি ডাইরেক্টর মো. আবুল হোসেন বলেন, ‘দুর্নীতি এখন সমাজের বোঝা। সমাজের প্রতিটি সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বা সংগঠনে দুর্নীতি বা স্বজনপ্রীতি গুরুত্বর আকার ধারণ করেছে। এটা আমাদের কমিয়ে আনতে হলে শিক্ষার্থীদের সততা, নিষ্ঠা ও দায়িত্ববান হতে হবে। কিছুদিন আগে শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে দুদক কর্তক গণশুনানী অনুষ্ঠানে আপনারা দেখেছিলেন কিভাবে সরকারি কর্মকর্তাদের উপর সাধারণ মানুষ আক্রমণমুখী হয়েছিল।

দুর্নীতি বিরোধী কার্যক্রমে আমাদের সকলকে ভূমিকা রাখতে হবে। সমাজ থেকে দুর্নীতি প্রতিরোধ করতে দুদক প্রতিটি জেলায় দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি করে দিয়েছেন। তাদেরকে কিন্তু ভেরিফিকেশন করে নেয়া হয়েছে। এজন্য তাদের আপনারা সহযোগিতা করবেন। প্রয়োজনে সরাসরি আমার সাথে কথা বলবেন বলে জানান তিনি।’

বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো বক্তব্য রাখেন জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি জিয়াউদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন, নির্বাহী সদস্য ডা. মো. আবুল কালাম বাবলা, স্বাগত বক্তব্য রাখেন পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের পরিচালক আলাউদ্দিন ফারুকি প্রিন্স প্রমুখ।
এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সহ-সভাপতি প্রফেসর শেখ আব্দুল ওয়াদুদ, সদস্য মো. আব্দুর রব ওয়ার্ছী, মো. আব্দুর রহমান ও রেবেকা সুলতানা প্রমুখ।

শিক্ষা উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানের এক পর্যায় ‘সামাজিক আন্দোলন ব্যতীত দুর্নীতি প্রতিরোধ সম্ভব নয়।’ শিরোনামে বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে পক্ষ দলের নিশাত রায়হানা রুহি ও তার দল এবং রানার্সআপ হয়েছে ফারিহা সুজানা শিমু ও তার দল। প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠ বক্তা নির্বাচিত হয় ফারিহা সুজানা শিমু। পরে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে ‘মানবতার দেওয়াল’ উদ্বোধন করেন অতিথিবৃন্দ।

শেয়ার করুন ..