সাতক্ষীরা শহীদ স্মৃতি কলেজে সন্ত্রাসী হামলা : শাস্তির দাবী শিক্ষার্থীদের

328

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শহীদ স্মৃতি কলেজে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে সন্ত্রাসী হামলা করেছে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী বাহিনী।

হামলার ঘটনায় বাদী হয়ে সাতক্ষীরা সদর থানায় এজাহার দাখিল করেছেন কলেজের অধ্যক্ষ ফজলুর রহমান।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, ১৭ নভেম্বর শনিবার সকাল ১০টা ১৫ মিনিটের সময় সদরের বাঁশদহা’র সাঁতানী গ্রামের মৃত মোকছেদ আলী ঢালী’র ছেলে ডা. সহিদুর রহমানের নেতৃত্বে রামদা, শাবল, চাইনিজ কঁড়াল, জিআই পাইপ, লোহার রড, হাতুরীসহ মারাত্বক দেশীয় অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ৭/৮ জনের একটি সন্ত্রাসী বাহিনী শহীদ স্মৃতি কলেজে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে হামলা করে। এসময় কলেজের উপাধ্যক্ষ দীপক কুমার মল্লিক ও কলেজের প্রধান অুিফস সহকারী মাগফুর রহমানকে ভয়ভীতি দেখিয়ে অধ্যক্ষ’র রুমের চাবী দিতে বললে রাজী না হওয়ায় তাদের রুম থেকে জোর পূর্বক বের করে দেয়।

এব্যাপারে কলেজের অধ্যক্ষ ফজলুর রহমান বলেন, সন্ত্রাসী বাহিনী আমার কলেজের কক্ষের তালা ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে আলমারীর লক ভেঙ্গে কলেজের মুল্যবান কাগজ পত্র এলোমেলো করতে থাকে। ঐ সময় আমি আসামীদের বাঁধা দিতে গেলে ডা. সহিদুর রহমান বোর্ডের ভিসি ও আমাকে অকথ্য ভাষায় গালি-গালাজ করতে থাকে। সেসময় মৃত আতিয়ার রহমানের ছেলে মো. নাজমুল কবির ও মৃত নাসির উদ্দিনের ছেলে মো. বাবুল আক্তার, মতিয়ার রহমান ঢালীর ছেলে মো. কামরুল বাসার লোহার রড ও জিআই পাইপ দিয়ে এলোপাতাড়িভাবে আমার শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারপিট করে। ডা. সহিদুর রহমান তার সন্ত্রাসী বাহিনীকে বলে ওকে শেষ করে দে।

এসময় সন্ত্রাসী বাহিনীরা আমাকে জিআই পাইপ দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারপিট করে রক্তাক্ত জখম করে। ঐ সময় কলেজের ভুগোল বিভাগের প্রদর্শক আলমগীর কবির আসামীদের বাঁধা দিলে বাঁশদহা এলাকার মৃত আকবর আলীর ছেলে আব্দুল- আল-মাহমুদ লোহার রড দিয়ে তাকে মাথায় আঘাত করতে গেলে সে ডান হাত দিয়ে রক্ষা করতে গেলে ডান হাতে হাড়ভাঙ্গা জখম হয়। এসময় একই এলাকার মৃত মতিয়ার রহমান ঢালীর ছেলে মো. কামরুল বাসার আলমগীর কবির’র ড্রয়ার হতে কলেজের টেস্ট পরীক্ষার প্রশ্ন ফিস এবং অন্যান্য হিসাব নিকাশের নগদ ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। এসময় কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের নামীয় কাগজ পত্র ও কলেজের কাগজ পত্র বিনষ্ট করে। এছাড়াও সন্ত্রাসী বাহিনী কলেজের মুল্যবান জিনিস পত্র ভাংচুর করে। যার মুল্য প্রায় ৭০ হাজার টাকা। এসময় সন্ত্রাসী বাহিনী কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের আগামীতে কলেজে প্রবেশ করলে খুন জখম করার হুমকি দিয়ে চলে যায়।

এব্যাপারে শিক্ষার্থী ও সচেতন মহল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সন্ত্রাসী বাহিনীর হামলাকারীদের দৃষ্ট্রান্তমুলক শাস্তির দাবী ও শিক্ষার সুষ্ঠ পরিবেশ ফিরিয়ে আনার জন্য প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শেয়ার করুন ..