দ্বিতীয় দিন শেষে ৫ উইকেট হারিয়ে চাপে বাংলাদেশ

131

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে বাংলাদেশের দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে দ্বিতীয় দিন শেষে পাঁচ উইকেট হারিয়ে চাপে রয়েছে টাইগাররা। প্রথম ইনিংসে ৩২৪ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ।

জবাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ প্রথম ইনিংসে ২৪৬ রান সংগ্রহ করে। দ্বিতীয় দিন শেষে পাঁচ উইকেট হারিয়ে ৫৫ রান সংগ্রহ করেছে। এতে বাংলাদেশের লিড নিয়েছে ১৩৩ রান। দ্বিতীয় দিন শেষে মুশফিকুর রহিম ৩০ বলে ১১ রান ও মেহেদি হাসান মিরাজ ৯ বলে শূন্য রান করে অপরাজিত রয়েছেন।

দ্বিতীয় ইনিংসে ইমরুল কায়েস পাঁচ বলে দুই, সৌম্য সরকার ১০ বলে ১১, মুমিনুল হক ১১ বলে ১২, মোহাম্মদ মিঠুন ৩৫ বলে ১৭ এবং সাকিব আল হাসান ২ বলে এক রান করেন। বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যানই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের সামনে দাঁড়াতে পারেননি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রথম ইনিংসের শুরুতে ৩ উইকেট তুলে নেন সাকিব-তাইজুল। পরের দুই উইকেট তুলে নেন অভিষেক হওয়া স্পিনার নাঈম হাসান। এরপর টি২০ গতিতে খেলা হেটমায়ারকে ফেরান মিরাজ। পরের দুই উইকেট আবার দখলে নেন নাঈম।

চট্টগ্রামে ক্যারিবিয়দের প্রথম ইনিংসে ওপেনার কিয়েরন পাওয়েলকে প্রথমে আউট করেন তাইজুল ইসলাম। এরপর এক ওভারে দুই উইকেট তুলে নেন সাকিব। প্রথমে শাই হোপকে করেন বোল্ড। এরপর ব্রাথওয়েটকে স্লিপে ক্যাচে পরিণত করেন। মধ্যে একটি ক্যাচও ফেলেছেন মুশফিক। শুরুর ২৯ রানে কোন উইকেট না হারানো ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৩১ রানের মাথায় হারায় ৩ উইকেট।
এরপর আমব্রিস ও চেজ করেন ৪৬ রানের জুটি। নিজের ৩১ রানে নাঈমের বলে শট লেগে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন চেজ। এর পরের ওভারে এসেই আবার উইকেট নেন ডানহাতি এই স্পিনার। ১৯ রানে ব্যাট করা আমব্রিসকে ফেরান তিনি। এরপর ৪৭ বলে পাঁচটি চার ও চারটি ছক্কায় ৬৩ রান করে মিরাজের বলে ফেরেন হেটমায়ার।

এর আগে মুমিনুলের সেঞ্চুরি আর শেষটায় তাইজুল-নাঈমের দৃড়তায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে প্রথম দিন শেষে ৩১৫ রান তোলে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় দিনের শুরুতে তার সঙ্গে মাত্র ৯ রান যোগ করলে পারেন তাইজুল-নাঈমরা। নাঈম হাসানের বিদায়ে ভাঙে তাদের ৬৫ রানের জুটি। শেষ পর্যন্ত ৩২৪ রানেই থামে বাংলাদেশের ইনিংস।

শেয়ার করুন ..