অবৈধ প্রার্থী : আ. লীগের ৩ ও বিএনপির ১৪১

122

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন বাতিলের পর আওয়ামী লীগের বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭৮ জনে এবং বিএনপির ৫৫৫ জন। আওয়ামী লীগের ৩ ও বিএনপির ১৪১ জনের মনোনয়ন বাতিল করেছেন সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

যাচাই-বাছাইয়ে সবচেয়ে বেশি বাতিল হয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মনোনয়ন। এতে ৩৮৪ জন স্বতন্ত্র প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করা হয়। নির্বাচনে ৪৯৮ জন স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে বর্তমানে বৈধ প্রার্থী রয়েছেন ১১৪ জন। রিটার্নিং কর্মকর্তাদের পাঠানো রিপোর্টে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

২৮ নভেম্বর ২৯৫টি আসনে বিএনপির ৬৯৬ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিলেন। এর মধ্যে মনোনয়ন বাতিলের ফলে বিএনপির পাঁচটি আসনে কোনো প্রার্থী রইল না। এর আগে ৫টি আসনে দলটির কেউ মনোনয়নপত্র দাখিল করেননি। সব মিলিয়ে ১০টি আসনে বিএনপির প্রার্থী নেই।

অন্যদিকে আওয়ামী লীগের তিনজনের প্রার্থিতা বাতিল হওয়ায় বর্তমানে ৩৯টি আসনে দলটির প্রার্থী নেই। এ নির্বাচনে ২৬৪ আসনে ২৮১ জন আওয়ামী লীগের মনোনয়নে প্রার্থী হয়েছিলেন।

এ নির্বাচনে সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী অন্য দলগুলোর মধ্যে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপির (ছাতা) ১২ জন বৈধ প্রার্থী রয়েছে। মনোনয়নপত্র দাখিল করেছিল ১৫ জন।

জাতীয় পার্টি-জেপি (বাইসাইকেল) বৈধ প্রার্থী রয়েছে ১৩ জন, বাংলাদেশের সাম্যবাদী দল (চাকা) ২ জন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ (গামছা) ৩২ জন, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি (কাস্তে) ৬৯ জন, গণতন্ত্রী পার্টি (কবুতর) ৮ জন, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (কুঁড়েঘর) ১১ জন, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি (হাতুড়ি) ৩২ জন, বিকল্পধারা বাংলাদেশ (কুলা) ২৪ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন।

অন্যান্য দলের মধ্যে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ (মশাল) ৩৯ জন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি (তারা) ৪৪ জন, জাকের পার্টি (গোলাপফুল) ৭৩ জন, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (মই) ৪৩ জন, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি-বিজেপি (গরুর গাড়ি) ৬ জন, বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশন (ফুলের মালা) ২০ জন, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন (বটগাছ) ২২ জন, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ (হারিকেন) ৪০ জন, ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (আম) ৭৩ জন, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ (খেঁজুর গাছ) ১৪ জন, গণফোরাম (উদীয়মান সূর্য) ৪৪ জন, গণফ্রন্ট (মাছ) ১৪ জন, প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দল-পিডিপি (বাঘ) ১৪ জন, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ (গাভী) ৫ জন, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি (কাঁঠাল) ১১ জন, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ (চেয়ার) ২৩ জন, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি (হাতঘড়ি) ৫ জন, ইসলামী ঐক্যজোট (মিনার) ২৩ জন, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস (রিকশা) ৯ জন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ (হাতপাখা) ২৮১ জন, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট (মোমবাতি) ২২ জন, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (হুঁক্কা) ৪ জন, বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি (কোদাল) ২৭ জন, খেলাফত মজলিস (দেয়ালঘড়ি) ১৩ জন, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ-বিএমএল (হাতপাঞ্জা) ৬ জন, বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোট (ছড়ি) ৩ জন, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট-বিএনএফ (টেলিভিশন) ৫৬ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে।

শেয়ার করুন ..