আশাশুনিতে নৃতাত্বিক শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ ও উপবৃত্তির টাকা বিতরণ

269

জি এম মুজিবুর রহমান ::
সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইফতেখার হোসেন আশাশুনি উপজেলার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন ও কর্মসূচিতে অংশ গ্রহন করেছেন। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দিনভর এ কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়।

আশাশুনি এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেদেয়েদের জন্য কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র মিলনায়তনে সন্ধ্যায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আর্থিক সহায়তায় ২০১৭-১৮ অর্থ বছরের আশাশুনি উপজেলার নৃতাত্বিক জনগোষ্ঠির শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ ও উপবৃত্তি প্রদান করা হয়। অনুষ্ঠানে ৫০ জনকে শিক্ষা উপকরণ ও ৪৭৫ জনকে ৩ লক্ষ টাকার উপবৃত্তি প্রদান করা হয়।

উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে জেলা প্রশাসক ইফতেখার হোসেন বলেন, তোমরা লেখাপড়া করছো, এখন তোমাদের সামনে অনেক সমস্যা আসতে পারে, অনেকে বাঁকা চোখে তাকাতে পারে। কিন্তু তাকে ভয় নয়, সকল সমস্যা কাটিয়ে তোমাদেরকে উচ্চ ডিগ্রী নিয়ে জীবনযুদ্ধে জয় করতে হবে। বাল্য বিবাহ বর্তমান সমাজে একটি বড় সমস্যা। মেয়েদের প্রতিভাকে বাল্য বিয়ে দিয়ে নষ্ট হতে দেওয়া যাবেনা। কুপ্রথায় অনেক অভিভাবক বাল্য বিয়ে দিয়ে থাকেন। নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে বিয়ের কোন বৈধতা নেই। নোটারি পাবলিকের কাগজ নিয়ে কেউ বাল্য বিয়ে দিতে গেলে পিতা-মাতা ও দাওয়াত খেতে যাওয়া সকলকে আটক করা হবে।

তিনি আরও বলেন, ভালভাবে লেখাপড়া করতে হবে, কেবল ৯০-৯৫ পেয়ে কোন লাভ নেই, শিখতে হবে, জানতে হবে। অনেকের ভাল সার্টিফিকেট আছে, কিন্তু প্রশ্ন করলে উত্তর পাওয়া যায়না। এমন ভাল রেজাল্টের জন্য লেখাপড়া মুল্যহীন। ইন্টারনেটের অপব্যবহার, মাদক ও জঙ্গীবাদ সম্পর্কে সকলকে সচেতন হতে আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, এসব ভবিষ্যৎকে ধ্বংস করে দেয়। এর থেকে দূরে থাকতে হবে, সৎ মানুষের সাথে মিশতে হবে। অসৎ সঙ্গ দূর করতে হবে। অসৎ সঙ্গে মিশে এখন নষ্ট হলে ভবিষ্যৎ অন্ধকার হয়ে যাবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাফফারা তাসনীনের সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক অসীম চক্রবর্ত্তীর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আ’লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম মোল্যা, সিনিঃ মৎস্য কর্মকর্তা সেলিম সুলতান, সমবায় অফিসার আনছারুল আজাদ, প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের জেনারেল ম্যানেজার আঃ লতিফ শেখ, এমপি প্রতিনিধি শম্ভুজিৎ মন্ডল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। একই স্থানে এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের জন্য কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের আয়োজনে ৫০ জন এতিমের মধ্যে পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে পোশাক বিতরণ করা হয়। পরে প্রধান অতিথি সদর ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে ৩ দিনের ফলদ বৃক্ষ মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগদান করেন। অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ স্টল মালিক ও সফল নার্সারী মালিকদের ক্রেস্ট ও উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়।

সবশেষে উপজেলা পরিষদে সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে ইউএনও মাফফারা তাসনীন, এসি (ল্যান্ড) মিজাবে রহমত, সকল সরকারি কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। এরআগে সকালে দরগাহপুর এসকেআইরএইচ কলেঃ স্কুল পরিদর্শন ও শিক্ষকদের সাথে মতবিনিময় করেন। বিকালে প্রতাপনগর ইউনিয়নের নাকনা আশ্রায়ন প্রকল্প চত্বরে বৃক্ষরোপন ও আলোচনা সভায় অংশ নেন। ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অতিথিবর্গ আলোচনা রাখেন।

শেয়ার করুন ..