সুপার কাপ জিতে মৌসুম শুরু বার্সেলোনার

156

বিশ্বকাপের আক্ষেপটা তাড়াতাড়ি স্মৃতিপট থেকে মুছে ফেলতে এর চেয়ে ভালো কোনো উপলক্ষ আর হয় না লিওনেল মেসির জন্য। তার নেতৃত্বে মৌসুম শুরু করা বার্সেলোনা সেই উপলক্ষটার দারুণ উদযাপন করলো। সেভিয়াকে ২-১ গোলে হারিয়ে কাতালান জায়ান্টরা জিতে নিয়েছে সুপারকাপ শিরোপা। আর এই শিরোপা বার্সেলোনার হয়ে মেসির ৩৩তম!

স্প্যানিশ ফুটবলের দুই প্রতিযোগিতা লা লিগা ও কোপা দেল রে চ্যাম্পিয়নরা মুখোমুখি হয় সুপার কাপে। গত মৌসুমে দু’টি শিরোপাই বার্সেলোনা জেতায় সুপার কাপে এরনেস্তো ভালভার্দের শিষ্যদের মুখোমুখি হয় কোপা দেল রে’র রানার্সআপ সেভিয়া। তবে রোববার (১২ আগস্ট) রাতে এ খেলা গড়িয়েছে জিব্রাল্টার প্রণালীর ওপারে উত্তর আফ্রিকার দেশ মরক্কোর তানজিয়ার শহরে।

পাবলো সারাবিয়ার গোলে সেভিয়া ম্যাচের নবম মিনিটেই এগিয়ে গেলেও জেরার্ড পিকে ও ওসমানে ডেম্বেলের দুই গোল শিরোপার পথ দেখায় কাতালান জায়ান্টদের।

তবে প্রথমার্ধের শুরুতেই সেভিয়া এগিয়ে যাওয়ার পর মেসি-সুয়ারেজের দলকে গোলের জন্য অপেক্ষা করতে হয় এ অর্ধের শেষ পর্যন্ত। ৪২তম মিনিটে বার্সেলোনা-ভক্তদের উল্লাসে মাতান পিকে। অধিনায়ক মেসির ফ্রি কিক পোস্টে লেগে ফিরে এলেও সুযোগ তৈরি হয় পিকের সামনে। সেই সুযোগ হাতছাড়া করবেন কেন এই ডিফেন্ডার? করেনওনি, বল জড়িয়ে দেন জালে।

বিরতি থেকে ফিরে দুই দলই সুযোগ তৈরি করেও ‘ফিনিশ’ করতে ব্যর্থ হয়। ৭৮ মিনিটে মেসির দুর্দান্ত শট ফিরিয়ে দেন সেভিয়ার গোলরক্ষক। তবে খানিকবাদেই তাকে ফাঁকি দিয়ে গোলের উল্লাসে মাতেন ফরাসি তরুণ তারকা ডেম্বেলে।

যোগ করা সময়ে ম্যাচে ফেরার সুযোগ পেয়েও ব্যর্থ হয় সেভিয়া। বার্সার গোলরক্ষক মার্ক টের-স্টেগেন সেভিয়ার ভিদালকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় তারা। কিন্তু এমন সুযোগও কাজে লাগাতে পারেননি বদলি হিসেবে নামা বেন ইয়েদের। রেফারি ম্যাচের সময় শেষের বাঁশি বাজালে ভালভার্দের শিষ্যরা মাতেন শিরোপা উদযাপনে।

এটি কাতালানদের ত্রয়োদশতম সুপার কাপ শিরোপা জয়। গতবার তাদের হারিয়ে দশম শিরোপা জিতেছিল রিয়াল মাদ্রিদ।

শেয়ার করুন ..