আশাশুনির কৃতি সন্তান বিচারপতি কামরুল ইসলাম সিদ্দিকীর ইন্তেকাল

409

জি এম মুজিবুর রহমান ::
আশাশুনি উপজেলার কৃতি সন্তান বিচারপতি (অবঃ) কামরুল ইসলাম সিদ্দিকী ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্না লিল্লাহি অইন্না ইলায়হি রাজেউন)। শনিবার সকাল ৯.৫০ টায় তিনি রাজধানীর ইবনে সিনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

শনিবার বাদ যোহর সুপ্রীম কোর্ট প্রাঙ্গনে তার প্রথম জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাজার নামাজে প্রধান বিচারপতি, অন্যান্য বিচারপতিবৃন্দ, এ্যাটার্নি জেনারেল, সিনিয়ির আইনজীবী, সাংবাদিকসহ তার দীর্ঘদিনের সহকর্মীরা অংশ নেন। বিচারপতি কামরুল ইসলাম সিদ্দিকীর ভাইপো তানভীর সিদ্দিকী জানান, তার চাচা কামরুল ইসলাম সিদ্দিকী বিগত এক বছর থেকে ক্যান্সারে ভুগছিলেন।

শনিবার সকাল ৯.৫০ মিনিটে তিনি রাজধানীর ইবনে সিনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তিনি জানান, রোববার বাদ যোহর গ্রামের বাড়ি আশাশুনি উপজেলার দরগাপুরে দ্বিতীয় জানাজার নামাজ শেষে পারিবারিক কবর স্থানে কামরুল ইসলাম সিদ্দিকীকে দাফন করা হবে।

বিচারপতি কামরুল ইসলাম সিদ্দিকী ১৯৫০ সালের ৩০ মে দরগাহপুর গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহন করেন। তিনি ১৯৭৫ সালের ডিসেম্বর মাসে মুন্সেফ হিসেবে বাংলাদেশ জুডিসিয়াল সার্ভিসে যোগদান করেন। পরবর্তীতে সাবজজ, ডেপুটি সেক্রেটারী, সুপ্রীম কোর্টের ডেপুটি রেজিস্ট্রার, জেলা ও দায়রা জজ, সুপ্রীম কোর্টের রেজিস্ট্রার এবং ২০০৪ সালের ২৮ আগষ্ট হাইকোর্ট বিভাগে বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন। তাঁর পিতা মরহুম আব্দুল ওহাব সিদ্দিকী তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের কলকাতায় ৩০ ও ৪০ এর দশকে প্রথিতযশা সাংবাদিক, সম্পাদক ও সাহিত্যিক ছিলেন।

শেয়ার করুন ..